শনিবার, জুলাই ২১, ২০১৮

আমাদের কণ্ঠস্বর

প্রধান ম্যেনু

তারুণ্যের সংবাদ মাধ্যম

”কুমারীত্ব বিসর্জন দিয়েছি ৩৫ বয়সেই”

রেবেকা চিন্তা করতে পেরেছেন যে তিনি কি ধরনের সঙ্গী চান

নারীরা কত বছর বয়সে কুমারীত্ব বিসর্জন দেন? এ-সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে গবেষণা চালিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। ইনডিপেনডেন্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, এ জাতি (ব্রিটিশ) বিছানার বিষয় নিয়ে আত্ম-সমালোচনা করে।

এখনকার সময়ের নারী-পুরুষ তার যৌন জীবন নিয়ে আগের চেয়ে অনেক বেশি খোলামেলা কথা বলেন। আগের চেয়ে বেশি সংখ্যাক যৌন সঙ্গী-সঙ্গিনীকে সময় দিচ্ছে তারা। তাই যখন কুমারীত্ব খোয়ানোর বিষয়ে জানতে চাওয়া হয়, তখন এটাকে লুকানোর প্রয়োজন মনে করে না নারীরা।
প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, গড়ে পুরুষরা কৌমার্য হারান ১৬ বছর ৯ মাস বয়সে। আর মেয়েরা আরেকটু বেশি বয়সে হারান, ১৭ বছর ৪ মাস বয়সে। কিন্তু মানুষ এখন যৌনতা নিয়ে অপেক্ষাকৃত কম বয়স থেকেই পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালাতে শুরু করেন। ১৯৫০ এর সময় যৌনকর্ম করার গড় বয়স ছিল ২১ বছর। কিন্তু ১৯৮০ এর সময়ের দিকে এ বয়স ১৭-তে নেমে আসে। আসলে সবার কিছু টিনএজ সময়ে সেক্স করার সুযোগ ও মানসিকতা গড়ে ওঠে না। এ ছাড়া অনেকের জন্যই তা এক জটিল বিষয়।

ব্রিটিশ চ্যানেল ৪ এর ডকুমেন্টরির বদৌলতে ৪০ বছর বয়সী কুমারী নারীর বিষয়টি সবাই মোটামুটি জানেন। কিন্তু জীবনের অর্ধেকটা সময় ধরে কুমারী থাকার বিষয়টি কেমন?

থ্রিলিস্ট এর জন্য কিছু লিখছিলেন রেবেকা গোল্ডেন। সেখানে তিনি জানান, ৩৫ বছর পর্যন্ত তার কুমারীত্ব ছিল। এর জন্য অবশ্য নিজের দৈহিক বৈশিষ্ট্যকে দায়ী বলে মনে করেন। ৩৩ বছর বয়সে তার দেহের ওজন ৬০০ পাউন্ড। ৩৪ বছর বয়সে তার গ্যাস্ট্রিক বাইপাস সার্জারি হয়। অপ্রয়োজনীয় অনেক ত্বক ফেলে দেওয়া হয়।

৩৫ বছর বয়সে তিনি আত্মবিশ্বাসী হয়ে ওঠেন। তিনি ডেটিং দুনিয়ায় যোগ দেন। অবশ্য প্রথমে রেবেকার বেশ সমস্যা হচ্ছিল। কারণ একজন পুরুষ যিনি কিনা বন্ধুর চেয়ে বেশিকিছু হয়ে উঠবেন, সে বিষয়টি তার কাছে নতুন কিছু ছিল। জানান, আমি সেই পুরুষদের সঙ্গে ডেটিংয়ের চেষ্টা করি যারা কখনো আমার সঙ্গে বিছানায় উঠবেন না।

অবশেষে তার দেখা হয় স্টিফেনের সঙ্গে। আর এই মানুষটির কাছেই তিনি কুমারীত্ব বিসর্জন দেন। কিন্তু একজন নারীর যদি যৌনতার অনুভূতি পেতে ৩০ বছর অপেক্ষায় থাকতে হয়, তবে এটা কি স্বাভাবিক হতে পারে একজন মানুষের জীবনে? এটা কি অস্বাভাবিক বিষয় নয়?

আসলে যৌনতা সম্পর্কে সব ধরনের প্রশ্নের উত্তর পেতে এ কাজে অংশ নিতে হবে বলে মনে করে বিশেষজ্ঞরা। দুই বছরের সম্পর্কের পর রেবেকা অনেক কিছুই স্পষ্ট বুঝতে শুরু করেছেন। তিনি এও জানিয়েছেন যে, উপভোগ্য এবং আনন্দময় সেক্সের দেখা পেয়েছেন তিনি ৩৮ বছর বয়স থেকে।

আসলে কুমারীত্ব বিসর্জন দেওয়ার অপেক্ষা যে খুব খারাপভাবে কাটে তা নয়। এ সময়ের মধ্যে রেবেকা চিন্তা করতে পেরেছেন যে, তিনি কি ধরনের সঙ্গী চান। তিনি বুঝতে পারেন নিজের পছন্দ সম্পর্কে। অন্তর্মুখী পুরুষদের প্রতিই আকৃষ্ট হয়ে ওঠেন তিনি।

কিন্তু পরের ৯ বছর যৌনতার পর তিনি এখন বোঝেন, যৌনতা থেকে কি পাচ্ছেন? রেবেকা বলেন, আমি ডেট করছি উপভোগের জন্য। আমার নিজস্ব পরিচয় সৃষ্টির জন্য নয়। আমার জীবনের প্রথম সেক্সের কথা মনেই করতে পারি না আমি। কিন্তু এমন একটা ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করতে পারি যেখানে আছে ভালোবাসা, অন্তরঙ্গতা এবং যৌনতা।
সূত্র : ইনডিপেনডেন্ট

এই সংক্রান্ত আরো সংবাদ

কেমন চশমা কোন মুখে

যাদের দৃষ্টি শক্তি হ্রাস পেয়েছে তাদের জন্য চশমা খুবই দরকারি।বিস্তারিত পড়ুন

কোল্ড ড্রিংক পানে ক্ষতি কিছুটা কম যেভাবে পান করলে

কোল্ড ড্রিংক পান করতে পছন্দ করেন অনেকেই। চিনিই হলো এরবিস্তারিত পড়ুন

  • যে ৫টি জিনিস অন্যদের কাছ থেকে ধার করলে সমূহ বিপদ হতে পারে
  • কোনও মহিলার সঙ্গে হাঁটার সময়ে অধিকাংশ পুরুষ এই বিশ্রী ভুলটি করে থাকেন
  • হৃদরোগ ও স্ট্রোকের ঝুঁকি কমানোর ৭টি কৌশল
  • চাকরির সাক্ষাৎকারে করা যাবে না যে ১০ ভুল
  • কলার খোসায় দূর হবে ব্রণ! পাশাপাশি ত্বকে আসবে প্রাকৃতিক উজ্জ্বলতা।
  • ছেলেদের বিয়ের সঠিক বয়স কত জানেন? সমীক্ষায় উঠে এল ভয়াবহ তথ্য
  • শুক্রাণু কমে যাচ্ছে, বিলুপ্ত হবে মানুষ!
  • শরীরচর্চা নয় আলতো চার স্পর্শে এবার কমবে ওজন
  • ফিট রাখবে বিট জ্যুস
  • মাসে ১০ পাউন্ড ওজন কমাবে সকালের নাশতায় “মিরাকল কফি”!
  • যে ৬ টি কাজ খুব দ্রুত কেড়ে নিচ্ছে আপনার যৌবন!
  • যে দশটি খাবার কখনোই ফ্রিজে রাখবেন না