বুধবার, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০১৮

আমাদের কণ্ঠস্বর

প্রধান ম্যেনু

তারুণ্যের সংবাদ মাধ্যম

”শান্তি প্রতিষ্ঠায় ভারতকে সহযোগিতা করতে চায় বাংলাদেশ”

দক্ষিণ এশিয়ায় শান্তি প্রতিষ্ঠায় ভারত ও প্রতিবেশী অন্যান্য দেশকে সহযোগিতা করতে চায় বাংলাদেশ একথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আজ বৃহস্পতিবার সকালে খুলনা-কলকাতা রুটে বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেন চলাচল, দ্বিতীয় ভৈরব ও দ্বিতীয় তিতাস সেতুর ওপর ট্রেন চলাচল এবং ঢাকা-কলকাতা মৈত্রী ট্রেনের যাত্রীদের ইমিগ্রেশন ও কাস্টমস সুবিধার উদ্বোধন করে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

ঢাকার গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আর ভারতের দিল্লিতে নিজ কার্যালয় থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে একে একে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন দুদেশের মধ্যে ট্রেনের তিনটি নতুন সেবার। এ সময় তাঁদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কলকাতা থেকে যুক্ত হয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও।

প্রথমে ঢাকা-কলকাতা মৈত্রী ট্রেনের যাত্রীদের জন্য ইমিগ্রেশন ও কাস্টমস সুবিধা, এর পর দ্বিতীয় ভৈরব ও দ্বিতীয় তিতাস সেতুর ওপর ট্রেন চলাচল এবং শেষে খুলনা-কলকাতা বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেন চলাচলের উদ্বোধন করা হয়।

উদ্বোধনের পর দেওয়া বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৬৫ সালের আগে দুই দেশের মধ্যে যেসব রেল যোগাযোগ ছিল, তার সবই চালু করার চেষ্টা করছে বাংলাদেশ ও ভারত সরকার।

‘দক্ষিণ এশিয়া একটি শান্তিপূর্ণ অঞ্চল গড়ে তোলার লক্ষ্যে আমরা ভারত এবং অন্যান্য নিকট প্রতিবেশীর সঙ্গে সহযোগিতা করতে চাই। আমি নিশ্চিত যে, আমাদের দুদেশের কল্যাণের জন্য আগামীতে এ ধরনের আরো অনেক আনন্দঘন মুহূর্ত অপেক্ষা করছে। আমাদের অভীষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছাতে আমি আপনাদের সঙ্গে কাজ করার জন্য সব সময় আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষায় থাকব’, বলেন প্রধানমন্ত্রী।

‘বন্ধন শুধু রেলের বন্ধন না, আমাদের এই বন্ধন যেন আমাদের দুই দেশের জনগণের মাঝে একটা বন্ধন সৃষ্টি করে সার্বিক আর্থসামাজিক উন্নয়নের পথে আমরা এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি, সেটাই আমাদের কাম্য’, যোগ করেন প্রধানমন্ত্রী।

ইমিগ্রেশন সুবিধা ও বন্ধন ট্রেন চালুর মাধ্যমে দুই দেশের জনগণের মধ্যে যোগাযোগ বাড়বে। এতে দুই দেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় পৌঁছাবে বলে আশাবাদ জানান ভারতের প্রধানমন্ত্রী।

আর দিনটিকে ঐতিহাসিক বলে উল্লেখ করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু মুজিবুর রহমানের সময় থেকেই বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতবর্ষের রিলেশন খুবই ভালো …এবং আমি এখনো মনে করি, আমাদের রিলেশন আরো ভালো হোক, সুন্দর হোক, সার্থক হোক।’

ভিডিও কনফারেন্সেই মোদি ও মমতাকে আবারও বাংলাদেশে আসার আমন্ত্রণ জানান প্রধানমন্ত্রী। আর প্রধানমন্ত্রীকে পশ্চিমবঙ্গ সফরের নিমন্ত্রণ জানান মমতা।

এই সংক্রান্ত আরো সংবাদ

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে তার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাবিস্তারিত পড়ুন

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশে ফেরার দিন

আজ ১০ জানুয়ারি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশবিস্তারিত পড়ুন

যুদ্ধাপরাধসংক্রান্ত ৩০তম মামলার রায়ের অপেক্ষা

মুক্তিযুদ্ধকালীন মানবতাবিরোধী অপরাধ তথা যুদ্ধাপরাধসংক্রান্ত ৩০তম মামলার রায় ঘোষণা করাবিস্তারিত পড়ুন

  • কোনো দলের ভোট বর্জনের আশঙ্কা দেখছেন না সিইসি
  • আজ ঢাকা উত্তর সিটি নির্বাচনের তফসিল
  • শীতের তীব্রতা কমতে পারে বৃহস্পতিবার থেকে
  • সৌদিতে ১০ বাংলাদেশির মৃত্যুতে প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রীর শোক
  • বাঁধ নির্মাণ শুরু হয়নি হাওরে, নীতিমালা বদলালেও
  • মোবাইল কোর্ট চলবে আপিল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত
  • আজ বিকেলে আওয়ামী লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর সভা
  • পুলিশ সপ্তাহঃ প্রতিপাদ্য ‘জঙ্গি মাদকের প্রতিকার, বাংলাদেশ পুলিশের অঙ্গীকার’
  • ‘আইনের শাসন সমুন্নত রাখতে সর্বাত্মক চেষ্টা চালাচ্ছে সরকার’
  • কয়েকজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছেঃ ইতিহাসের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা পঞ্চগড়ে
  • বুধবার মন্ত্রিসভার নতুন সদস্যদের দফতর বণ্টন
  • বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত পপি ব্রিটেনের রানির বিশেষ সম্মাননা পেলেন