সোমবার, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১৮

আমাদের কণ্ঠস্বর

প্রধান ম্যেনু

তারুণ্যের সংবাদ মাধ্যম

‘সন্তানকে আগুনে ছুড়ে আমাকে ধর্ষণ করে সেনারা’

গত ২৫ আগস্ট শুরু হওয়া সেনা অভিযানে মিয়ানমারের রাখাইন রাখাইন রাজ্যে কেউ হারিয়েছেন বাবা-মা, কেউ ভাই-বোন, আবার কেউ-বা সন্তান-সন্ততি, আত্মীয়স্বজন বা প্রতিবেশী। অনেকে আবার পরিবারে সবাইকে হারিয়ে একেবারে সর্বশান্ত। অভিযান শুরুর পর হত্যাযজ্ঞের শিকার হয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া প্রায় পাঁচ লাখ ৩৮ হাজার রোহিঙ্গার মধ্যে একজন রাজুমা। কক্সবাজারের কুতুপালংয়ে অস্থায়ী আশ্রয় শিবিরের এক ঝুপড়ি ঘরের ধুলা-মাখা মাটিতে বসে তিনি স্বজন হারানোর ভয়াবহ বর্ণনা দিয়েছেন আলজাজিরার প্রতিবেদকের কাছে।

‘যখন সেনারা আমাকে মারতে শরু করে তখন দেড় বছর বয়সী শিশু-সন্তান সাদিক আমার কোলে’, ভারাক্রান্ত মনে বলেন রাজুমা।

রোহিঙ্গা এই নারী বলেন, ‘সেনাদের মারের চোটে সাদিক আমার কোল থেকে পড়ে যায়। তারপর তারা আমাকে টেনেহিঁচড়ে দেয়ালের কাছে নিয়ে যায়। তখন আমি শুনতে পাই আমার সন্তান কাঁদছে। এর কয়েক মিনিট পর শুনতে পাই, তারা আমার সন্তানকে মারছেও। আমি সাদিককে আবারও জাপ্টে ধরলে, তারা কোল থেকে কেড়ে নিয়ে আমার সন্তানকে আগুনে ছুড়ে মারে। পরে আমাকে তারা সবাই মিলে ধর্ষণ করে।’

রাখাইন রাজ্যের তুলা তুলি গ্রামে সবসময় খেলে বেড়ানো আদরের সন্তান সাদিক আর নেই, এটা বিশ্বাসই করতে পারছেন না রাজুমা। সন্তানহারা এই মা বলেন, ‘তখন আমার মনে হচ্ছিল, আমিই ওই আগুনে পুড়ছিলাম।’

ওই দিন রাজুমার মা, দুই বোন ও একভাইকে হত্যা করে মিয়ানমারের সেনারা। এখন তাঁর পরিবারে শুধু স্বামী মোহাম্মদ রফিক ছাড়া আর কেউ বেঁচে নেই।

এরপর থেকেই রাজুমা মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছেন। কিন্তু মানসিক চিকিৎসার সুযোগ-সুবিধা পর্যাপ্ত না থাকায় তাঁকে চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না বলে জানান স্বামী রফিক।

রফিক বলেন, ‘মাঝেমাঝে রাজুমা বলে, তার মাথা ঘুরছে। এটা সে সহ্য করতে পারে না, ওই সময় তার অনেক কষ্ট হয়। মাঝেমাঝে সে আমাদের সন্তানকেও দেখতে পায়। তখন রাজুমা চিৎকার করে কেঁদে ওঠে। এখন সে প্রতিদিন কাঁদে।’

রোহিঙ্গা মা-মেয়ে ধর্ষণ হওয়ার এ রকম আরো অনেক গল্পই শুনেছেন আলজাজিরার এই প্রতিবেদক। অভিযান শুরুর পর থেকে খাদ্য, চিকিৎসা, বাসস্থানসহ নানামুখী সংকটের মুখে মানবেতর জীবনযাপন করছে বাংলাদেশে আশ্রিত লাখো রোহিঙ্গা।

এই সংক্রান্ত আরো সংবাদ

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে তার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাবিস্তারিত পড়ুন

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশে ফেরার দিন

আজ ১০ জানুয়ারি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশবিস্তারিত পড়ুন

যুদ্ধাপরাধসংক্রান্ত ৩০তম মামলার রায়ের অপেক্ষা

মুক্তিযুদ্ধকালীন মানবতাবিরোধী অপরাধ তথা যুদ্ধাপরাধসংক্রান্ত ৩০তম মামলার রায় ঘোষণা করাবিস্তারিত পড়ুন

  • কোনো দলের ভোট বর্জনের আশঙ্কা দেখছেন না সিইসি
  • আজ ঢাকা উত্তর সিটি নির্বাচনের তফসিল
  • শীতের তীব্রতা কমতে পারে বৃহস্পতিবার থেকে
  • সৌদিতে ১০ বাংলাদেশির মৃত্যুতে প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রীর শোক
  • বাঁধ নির্মাণ শুরু হয়নি হাওরে, নীতিমালা বদলালেও
  • মোবাইল কোর্ট চলবে আপিল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত
  • আজ বিকেলে আওয়ামী লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর সভা
  • পুলিশ সপ্তাহঃ প্রতিপাদ্য ‘জঙ্গি মাদকের প্রতিকার, বাংলাদেশ পুলিশের অঙ্গীকার’
  • ‘আইনের শাসন সমুন্নত রাখতে সর্বাত্মক চেষ্টা চালাচ্ছে সরকার’
  • কয়েকজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছেঃ ইতিহাসের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা পঞ্চগড়ে
  • বুধবার মন্ত্রিসভার নতুন সদস্যদের দফতর বণ্টন
  • বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত পপি ব্রিটেনের রানির বিশেষ সম্মাননা পেলেন