সোমবার, জুলাই ১৫, ২০২৪

আমাদের কণ্ঠস্বর

প্রধান ম্যেনু

তারুণ্যের সংবাদ মাধ্যম

গভীর সমুদ্রবন্দরসহ মেগা প্রকল্পে চীনের বড় বিনিয়োগ আসছে

বাংলাদেশে গভীর সমুদ্রবন্দরসহ যে কোনো মেগা প্রকল্পে বড় বিনিয়োগে আগ্রহী চীন। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে অবকাঠামো, যোগাযোগ ও অন্যান্য খাতের দুর্বলতা কাটিয়ে উঠতে চায় সরকার। এজন্য চীনের সঙ্গে আসন্ন যৌথ অর্থনৈতিক কমিশনের সভায় (জেইসি) দেশটির বিনিয়োগের বিষয়টি গুরুত্ব পাচ্ছে। দুই দেশের মধ্যে এটিই প্রথম জেইসি সভা। অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি) সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

ইআরডি জানায়, আগামী ২২ আগস্ট ঢাকায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে চীন বাংলাদেশের যৌথ এ সভা। বৈঠকে চীনের বাণিজ্যবিষয়ক ভাইস মিনিস্টার গাও ইয়ান চীনের প্রতিনিধি দলের নের্তৃত্ব দেবেন। অন্যদিকে বাংলাদেশের পক্ষে ইআরডির সিনিয়র সচিব মেজবাহ উদ্দিন নেতৃত্ব দেবেন। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সমাপনী বৈঠকে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, বিশ্ব পরাশক্তি হিসেবে চীনের আবির্ভাবের আকাঙ্ক্ষা এবং ভূরাজনৈতিক অবস্থানের কারণে বাংলাদেশের সঙ্গে কৌশলগত সম্পর্ক উন্নয়নের চেষ্টা হিসেবে এ বিনিয়োগ করতে আগ্রহী চীন। বাংলাদেশও অবকাঠামো খাতে দুর্বলতা কাটাতে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কাজ করছে। এ জন্য বিনিয়োগের ক্ষেত্রে চীনের আগ্রহ সুযোগ হিসেবে দেখা হচ্ছে।

জানা গেছে, ইতোমধ্যে পদ্মা সেতুতে রেল সংযোগসহ কর্ণফুলী নদীর নিচে টানেল নির্মাণের মতো গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পে চীনের বিনিয়োগ নিশ্চিত হয়েছে। যোগাযোগ অবকাঠামোসহ বেশ কিছু প্রকল্পেও অর্থায়ন প্রক্রিয়া চলমান। দেশটির বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করতে দুটি অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এ অবস্থায় এবারের বৈঠকটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছেন ইআরডির কর্মকর্তারা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ইআরডির ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা বলেন, চীনের সঙ্গে এই প্রথম বৈঠক নিয়ে ব্যাপক আশাবাদী ইআরডি। আশা করছি, এ বিষয়ে ভালো কিছু একটা অর্জন করা সম্ভব হবে।

সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্কের ৪০ বছর পূর্তি হয়েছে। ১৯৭৫ সাল থেকে এ পর্যন্ত দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক যথেষ্ট জোরদার হয়েছে। বন্ধুত্বপূর্ণ দুই দেশের সম্পর্ককে আরো সুদৃঢ় করতে এক হাজার ২০০ কোটি ডলারের একটি বিনিয়োগ প্রস্তাব ইতোমধ্যে দিয়েছে দেশটি। ওই প্রস্তাব থেকে বেশ কয়টি প্রকল্পের বাস্তবায়ন কাজ শুরু হয়েছে। দুই দেশের সম্পর্ককে আরো জোরদার করতে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের বাংলাদেশ সফরের কথা রয়েছে। আগামী অক্টোবরে এ সফর হতে পারে বলে জানা গেছে।

গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের নির্বাহী পরিচালক মুস্তাফিজুর রহমান এ বিষয়ে বলেন, এ মুহূর্তে চীনের সঙ্গে প্রধানত তিনটি বিষয়কে গুরুত্ব দিতে হবে। এর মধ্যে প্রথমটি হচ্ছে অর্থনৈতিক অঞ্চলে বিনিয়োগ করা।

তিনি বলেন, আমাদের বাস্তবায়ন কাজে বিলম্ব হয় এ কারণে নির্ধারিত অঞ্চল স্থাপনের কাজ যদি চীন করে তাহলে এটি অনেক দ্রুত হবে। একই সঙ্গে তাদের দেশে পিছিয়ে পড়া শিল্পপ্রতিষ্ঠান দ্রুত বাংলাদেশের অর্থনৈতিক জোনে স্থানান্তর করার বিষয়ও চীনকে ভাবতে হবে।

তিনি আরো বলেন, চীন পাকিস্তানকে সম্প্রতি ৫৪ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। এর মধ্যে ৪৬ বিলিয়ন ডলারই অবকাঠামো খাতে। ফলে বাংলাদেশেরও চীনের কাছে অবকাঠামো খাতে বড় বিনিয়োগের দাবি করা উচিত।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ চীন থেকে বড় অংকের পণ্য আমদানি করে। প্রধান আমদানি পণ্যের মধ্যে রয়েছে- টেক্সটাইল, যন্ত্রপাতি ও বৈদ্যুতিক সরঞ্জামাদি, সার, টায়ার, লৌহ ও ইস্পাত, সয়াবিন তেল, পাম অয়েল ও গম।

অন্যদিকে চীন বাংলাদেশ থেকে চামড়া, পাট ও পাটজাত পণ্য, চা, তৈরি পোশাক এবং মৎস্যজাতীয় পণ্য আমদানি করে।

এই সংক্রান্ত আরো সংবাদ

ছাত্রপক্ষের ঢাবি শাখার আহ্বায়ক জিহাদ, সদস্যসচিব হাসিব

খালিদ সাইফুল্লাহ জিহাদকে আহ্বায়ক এবং জুবায়ের হাসিবকে সদস্যসচিব করে বাংলাদেশবিস্তারিত পড়ুন

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে খুবিতে বিক্ষোভ

সংসদে আইন পাশ করে কোটা সংস্কারের দাবি ও বিভিন্ন ক্যাম্পাসে কোটা আন্দোলনের সময় শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করেছে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের (খুবি) শিক্ষার্থীরা। শুক্রবার বিকাল ৫টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের হাদী চত্বর থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি বের করা হয়। মিছিলটি আচার্য জগদীশচন্দ্র বসু একাডেমিক ভবন, কেন্দ্রীয় মন্দির, অপরাজিতা ছাত্রী হল, কেন্দ্রীয় গবেষণাগার, কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার, আবাসিক ছাত্র হল, শহিদ তাজ উদ্দিন আহমেদ প্রশাসন ভবনসহ বিভিন্ন ভবনের সামনে দিয়ে পুরো ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের পুলিশ ফাঁড়ির সামনে দিয়ে প্রধান ফটকের সামনে অবস্থান নেয়। তবে শিক্ষার্থীরা সড়কের একপাশে অবরোধ করায় যান চলাচল স্বাভাবিক ছিল। বিক্ষোভে শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন। শিক্ষার্থীরা বলেন, বৈষম্যমূলক কোটা ব্যবস্থার বিরুদ্ধে কথা বলায় বিভিন্ন ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের লাঠিচার্জ করে আহত করা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের গায়ে কেন হাত দেওয়া হলো প্রশাসনকে এর জবাব দিতে হবে। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত পুলিশ দিয়ে হামলা করে ছাত্র সমাজকে দমানো যাবে না।

ভারি বৃষ্টির আভাস ৪ বিভাগে, বাড়তে পারে তাপমাত্রা

দেশের চার বিভাগে ভারি এবং চার বিভাগে হালকা বৃষ্টি হতেবিস্তারিত পড়ুন

  • সরকারের জিম্মি থেকে দেশ ও জনগণ মুক্তি চায়: রাশেদ প্রধান
  • সতর্কবার্তা যাচ্ছে কোটা আন্দোলনে
  • পাকিস্তানের সংসদে পিটিআইকে সংরক্ষিত আসন দিতে আদালতের নির্দেশ
  • তিন দিন পর সারাদেশে গ্যাস সরবরাহ স্বাভাবিক
  • বাংলা ব্লকেডে শিক্ষার্থীরা, ‘কঠোর’ পুলিশ, মাঠে ছাত্রলীগও
  • ছাগলকাণ্ড: মতিউর পরিবারের আরও ১১৬টি ব্যাংক হিসাব, জমি-ফ্ল্যাট জব্দের নির্দেশ
  • খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য দরকার রাজনৈতিক দাওয়াই: মির্জা আব্বাস
  • পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে শাহবাগে শিক্ষার্থীরা, পিছু হটল রায়ট কার
  • কোটা আন্দোলন: মেট্রোরেলের শাহবাগ স্টেশন বন্ধ
  • আসামিসহ প্রিজন ভ্যান আটকে দিলো আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা
  • কোটা আন্দোলন: শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফেরার আহ্বান প্রধান বিচারপতির
  • দশম দিনে গড়াল ঢাবি শিক্ষকদের কর্মবিরতি