বৃহস্পতিবার, জুন ২০, ২০২৪

আমাদের কণ্ঠস্বর

প্রধান ম্যেনু

তারুণ্যের সংবাদ মাধ্যম

‘জনস্বাস্থ্য উন্নয়নে তামাকজাত দ্রব্যের ব্যবসায়ে লাইসেন্স প্রদাণের গুরুত্ব ও করনীয়’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলন

বিশ্বব্যাপী প্রতিরোধযোগ্য মৃত্যুর অন্যতম প্রধান কারণ তামাকজাত দ্রব্যের ব্যবহার। তামাকজাত দ্রব্যের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজন সম্মিলিত উদ্যোগ। সরকার বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে বিবেচনায় নিয়ে ইতোমধ্যেই দেশে ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার (নিয়ন্ত্রণ) আইন ও বিধিমালা প্রণয়ন ও সংশোধনের পাশাপাশি তামাক নিয়ন্ত্রণে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। এমতাবস্থায়, তামাক নিয়ন্ত্রণ কার্যμমকে এগিয়ে নিতে হলে নীতি প্রণয়ন ও কর বৃদ্ধির পাশাপাশি এসকল দ্রব্যের সহজ প্রাপ্যতা নিয়ন্ত্রণে সম্মিলিত উদ্যোগ গ্রহণ করা অত্যন্ত জরুরী। সম্প্রতি অত্যন্ত উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, যত্রতত্র অবাধে বিড়ি-সিগারেটসহ তামাকজাত পণ্যের বিμয় আশংকাজনকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। এ অবস্থা থেকে উত্তোরণে বিড়ি-সিগারেটসহ সকল ধরনের তামাকজাত দ্রব্য বিক্রয়ে লাইসেন্স গ্রহণ বাধ্যতামূলক করার উদ্যোগ গ্রহণ করা জরুরী।

উপোরোক্ত বিষয়ে আজ ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৬, শনিবার, সকাল ১০:০০ টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এইড ফাউন্ডেশন ও বাংলাদেশ তামাক বিরোধী জোটের এর সম্মিলিত উদ্যোগে এক অবস্থান কর্মসূচি আয়োজন করা হয়, অবস্থান কর্মসূচি শেষে বেলা ১১:০০ টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ‘জনস্বাস্থ্য উন্নয়নে সকল ধরনের তামাকজাত দ্রব্যের ব্যবসায়ে লাইসেন্স প্রদাণের গুরুত্ব ও করনীয়’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানের শুরুতে বাংলাদেশ তামাক বিরোধী জোটের সমন্বয়কারী সাইফুদ্দিন আহম্মেদের সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্যে সম্মেলনের উদ্দেশ্য সম্পর্কে অবহিত করেন এইড ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক আমিনুল ইসলাম বকুল। তারই ধারাবাহিকতায়, অনিয়ন্ত্রিত তামাকজাত পণ্যের বিপণন ও তামাকজাত দ্রব্য বিক্রয়কারীদের ব্যবসার প্রকৃত পরিস্থিতি অন্বেষণ কল্পে, ঢাকা ও খুলনা বিভাগের-৫টি সিটি কর্পোরেশন এবং ২২ টি জেলা শহরে একটি পর্যবেক্ষণ জরিপের ফলাফল আলোক চিত্রে উপস্থাপন করেন বিশিষ্ট গবেষক ডঃ আকরামুল ইসলাম।

প্রদর্শিত পর্যাবেক্ষনের উপর সকলের সমন্বয়ে এক মুক্ত আলোচনা ও প্রশ্ন উত্তর পর্ব গ্রহন করা হয়। উত্থাপিত প্রশ্নের আলোকে অনান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দি ইউনিয়নের কারিগারি পরামর্শক সৈয়দ মাহবুবুল আলম তাহিন, প্রত্যাশা মাদক বিরোধী সংগঠনের সাধারন সম্পাদক হেলাল আহমেদ, মানবিকের উপদেষ্টা রফিকুল ইসলাম মিলন সহ বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম বক্তি ও সুশিল সমাজ প্রতিনিধীরা। বক্তারা তাদের বক্তব্যে তামাক নিয়ন্ত্রন আইনের গুরুত্ব সহ তামাক কোম্পানীর আইন ভঙ্গের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। পাশাপাশি যত্রতত্র তামাকজাত দ্রব্য বিক্রয় নিয়ন্ত্রনে লাইসেন্স তৈরি ও নীতিমালা প্রণয়নের উপর বক্তারা গুরুত্ব আরোপ করেন।

যত্রতত্র তামাকজাত দ্রব্য বিক্রয় বন্ধে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ২০০ গজের মধ্যে তামাকজাত দ্রব্য বিক্রয় বন্ধের জন্য ঢাকা উত্তর ও দক্ষিন সিটি কর্পোরেশনের মেয়রকে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে অনুরোধ করা হয়। জনস্বাস্থ্য সুরক্ষায় পৌরসভা সমূহ Local Government (Municipality) Act 2009 এর সেকশন ৫০ ও সিডিউল-২ এর ক্ষমতাবলে অনিয়ন্ত্রিতভাবে তামাকজাত পণ্যের বিপণনের উপর লাইসেন্স আরোপ করতে পারে বলে বক্তারা মত প্রকাশ করেন।

এই সংক্রান্ত আরো সংবাদ

কোকেনের সবচেয়ে বড় চালানে জড়িতদের নাম পেয়েছে ডিএনসি

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর দেশে কোকেনের সবচেয়ে বড় চালান জব্দের ঘটনায়বিস্তারিত পড়ুন

শপথ করছি, মাদক ছোঁব না

মাইকে ঘোষণা হলো ‘এখন মাদকের বিরুদ্ধে আমরা শপথ নেবো’। শপথবিস্তারিত পড়ুন

ক্ষতি বছরে ১ লাখ কোটি ডলারঃ ধুমপানের পিছনে

ধুমপানে প্রতি বছর বিশ্ব অর্থনীতির ক্ষতি হয় এক ট্রিলিয়ন বাবিস্তারিত পড়ুন

  • মাদকাসক্তদের জন্য যা করণীয়
  • টঙ্গীতে মাদকসহ মহিলা আ.লীগ নেত্রী আটক
  • মাদকের সয়লাবে বরগুনার পাথরঘাটা, বাড়ছে নানা অপরাধ প্রবনতা
  • ৩ কোটি টাকার মাদক ধ্বংস করেছে বিজিবি
  • ধূমপান বন্ধ করতে চান?
  • তামাক পণ্যে সচিত্র সতর্ক বার্তা প্রশ্নে রুল জারি
  • লক্ষ্মীপুরে মাদকাসক্ত পুত্রের বিরুদ্ধে পিতার অভিযোগ
  • কিডনি ও রক্ত বিক্রি করে নেশার টাকা দিতে মাকে মারধর
  • স্বাস্থ্য সতর্কবাণী দিচ্ছে না ৭৫ ভাগ তামাক কোম্পানি
  • মাদকসেবী ছেলেকে পুলিশে দিলেন মা-বাবা
  • বাজার দখলে মরিয়া জাপান টোব্যাকো