শনিবার, জুলাই ১৩, ২০২৪

আমাদের কণ্ঠস্বর

প্রধান ম্যেনু

তারুণ্যের সংবাদ মাধ্যম

জামিনে মুক্ত পেলেন মির্জা ফখরুল

দীর্ঘ প্রায় ছয় মাস পর কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি পেলেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রিজন সেল থেকে মুক্তি পান তিনি। তার জামিনের নথিপত্র কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে হাসপাতালের প্রিজন সেলে পৌঁছানোর পর তাকে মুক্তি দেওয়া হয়।

মুক্তি পাওয়ার পর মির্জা ফখরুল জানান, তিনি শিগগিরই উন্নত চিকিৎসার জন্য আমেরিকা অথবা সিঙ্গাপুরে যাবেন। এ সময় তার সঙ্গে স্ত্রী রাহাত আরা খানম ও বিএনপির বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। জাতীয় প্রেস ক্লাব থেকে গত বছরের ৬ জুলাই মির্জা ফখরুলকে আটক করা হয়। পরে তাকে নাশকতার মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়। গত ১৩ জুন চিকিৎসার জন্য ফখরুলকে হাসপাতালটির প্রিজন সেলে ভর্তি করা হয়।

এ ব্যাপারে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেলসুপার ফরমান আলী সমকালকে বলেন, জামিনের কাগজপত্র হাতে পাওয়ার পর তা যাচাই-বাছাই করে মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে মির্জা ফখরুল ইসলামকে মুক্তি দেওয়া হয়। এর আগে সোমবার পল্টন থানার নাশকতার তিন মামলায় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে ছয় সপ্তাহের জামিন দেন সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ।

এই সময়ের মধ্যে ফখরুল চাইলে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে যেতে পারবেন বলে জানান সর্বোচ্চ আদালত। পল্টন থানার এই তিন মামলায় জামিনের মেয়াদ শেষে ফখরুলকে ফের নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করতে বলা হয়েছে। কারামুক্তির পর উপস্থিত সাংবাদিকদের সামনে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দেশবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান। কারাগারে থাকা অবস্থায় তার অসুস্থতার খবর তুলে ধরার জন্য গণমাধ্যমকর্মীদেরও ধন্যবাদ জানান তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমি অত্যন্ত অসুস্থ’, করোনারী আর্টারীর ব্লক ও আইভিএসের সমস্যা শারীরিক অসুস্থতা বেড়ে গেছে। ছয় মাসে আমার প্রায় ১২ কেজি ওজন কমেছে। কিছু দিনের জন মুক্তি পাওয়ায় আল্লাহর কাছে শুকরিয়া জানাচ্ছি।’ চিকিৎসার জন্য শিগগিরই সিঙ্গাপুর অথবা আমেরিকা যাচ্ছেন জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি আগে আমেরিকা ও সিঙ্গাপুরে ডাক্তার দেখাতাম। এখনও চিকিৎসার জন্য আমাকে যেতে হবে। আমার স্ত্রী ইতিমধ্যে সে সব দেশের চিকিৎসকদের সঙ্গে সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন।’

হাসপাতালের প্রিজন সেল থেকে মুক্তি পাওয়ার পর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মা ফাতেমা আমিনকে দেখতে যান মির্জা ফখরুল। সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে তিনি হাসপাতালে পৌঁছান। ৭৯ মামলার বোঝা কাঁধে নিয়ে ছয় মাস ধরে কারাবন্দি ছিলেন মির্জা ফখরুল ইসলাম। কারাগারে অসুস্থ হয়ে পড়লে গত রোববার পাঁচ সদস্যের মেডিকেল বোর্ডের সুপারিশ অনুযায়ী স্বাস্থ্যগত অবস্থা বিবেচনায় নিয়ে চিকিৎসার জন্য ফখরুলকে ছয় সপ্তাহের জামিন দেওয়া হয়।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, ফখরুল ভাসকুলার রোগে আক্রান্ত । এই সমস্যার জন্য তার উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন। পরে আদালত জামিন আদেশ বহাল রাখেন। মির্জা ফখরুলের স্ত্রী রাহাত আরা খানম জানিয়েছেন, তার হৃদযন্ত্রের চারটি ব্লক ধরা পড়েছে। এর মধ্যে তিনটিতে রিং বসানো হয়েছে। এখন তার গলার ধমনিতে (নার্ভ) প্রতিবন্ধকতা ধরা পড়েছে। এতে মারাত্মক ঝুঁকির সৃষ্টি হয়েছে। এ অবস্থায় বিদেশে নিয়ে তার উন্নত চিকিৎসা প্রয়োজন।

এই সংক্রান্ত আরো সংবাদ

বিকেলে বাসায় ফিরবেন খালেদা জিয়া

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতাল থেকে বাসায় নেওয়াবিস্তারিত পড়ুন

খালেদা জিয়া মুক্তি পেলে দেশের গণতন্ত্র মুক্তি পাবে : এ্যানী

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী বলেছেন, দেশনেত্রী বেগমবিস্তারিত পড়ুন

রায়পুরায়  বিএনপির প্রায় ১০০ নেতা কর্মী আ’লীগে যোগদান

‘আওয়ামী লীগ দেশের উন্নয়নের জন্য কাজ করে, ঘরের ছেলে ঘরেবিস্তারিত পড়ুন

  • বিএনপির আন্দোলন ভুয়া, তারেক রহমানের নেতৃত্বে আতঙ্কিত: ওবায়দুল কাদের
  • খালেদা জিয়ার ৩ রোগ বড় সংকট : চিকিৎসকরা
  • মুক্তিযুদ্ধের নামে বিএনপি ভাওতাবাজি করে : ওবায়দুল কাদের
  • দেশের মানুষ ঈদ করতে পারেননি
  • বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটিতে রদবদল
  • বিএনপির টপ টু বটম দুর্নীতিতে জড়িত: কাদের
  • চার্জ গঠন বাতিল চেয়ে রিট করবেন ড. ইউনূস
  • চার্জ গঠন বাতিল চেয়ে রিট করবেন ড. ইউনূস
  • আদালতে লোহার খাঁচায় থাকা অপমানজনক: ড. ইউনূস
  • বাংলাদেশের জনগণের প্রত্যাশাকে মর্যাদা দেবে ভারতের নতুন সরকার : ফখরুল 
  • ৫৩ বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ ১০৬ জনকে সম্মাননা দিল ‘আমরা একাত্তর’
  • আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় রাখতে সর্বশক্তি নিয়োগ করেছেন বেনজীর : মির্জা ফখরুল