রবিবার, মে ১৯, ২০২৪

আমাদের কণ্ঠস্বর

প্রধান ম্যেনু

তারুণ্যের সংবাদ মাধ্যম

বন্যপ্রাণী সংক্রান্ত অপরাধ : তথ্যে মিলবে পুরস্কার

বন্যপ্রাণী সংক্রান্ত অপরাধ উদ্ঘাটনে তথ্য প্রদানকারীকে পুরস্কার দেবে সরকার। এ জন্য ‘বন্যপ্রাণী সংক্রান্ত অপরাধ উদ্ঘাটনে তথ্য প্রদানকারীকে পুরস্কার প্রদান বিধিমালা-২০১৫’ এর খসড়া চূড়ান্ত করেছে পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়।

খসড়া বিধিমালা অনুযায়ী পাঁচ ধরনের বন্যপ্রাণীর ক্ষেত্রে তিন শ্রেণীর তথ্য দিয়ে পুরস্কার জেতা যাবে। সর্বোচ্চ পুরস্কার ৫০ হাজার টাকা।

পরিবেশ ও বন সচিব কামাল উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘বন্যপ্রাণী সংক্রান্ত অপরাধ কমিয়ে আনা ও এ বিষয়ে মানুষের সচেতনতা সৃষ্টির জন্য তথ্য প্রদানকারীকে পুরস্কার দিতে একটি বিধিমালার খসড়া চূড়ান্ত করা হয়েছে। এ বিষয়ে বিভিন্ন পক্ষের মতামতও নেওয়া হয়েছে। আমরা এ বিধিমালাটি আরেকটু ঘষামাজা করে আইন মন্ত্রণালয়ের মতামত নিয়ে চূড়ান্ত করব।’

বিধিমালায় বাঘের ক্ষেত্রে আসামি ও বাঘসহ বনাঞ্চলের অভ্যন্তরে তথ্যের জন্য ৫০ হাজার টাকা, আসামি ও বাঘসহ বনাঞ্চলের বাইরে ২৫ হাজার টাকা ও আসামি ছাড়া বাঘ সংক্রান্ত অপরাধ উদ্ঘাটনের তথ্যের জন্য ১০ হাজার টাকা পুরস্কারের কথা বলা হয়েছে।

কুমির ও হাতির ক্ষেত্রে আসামি ও প্রাণীসহ বনাঞ্চলের অভ্যন্তরে তথ্যের জন্য ৩০ হাজার টাকা, আসামি ও প্রাণীসহ বনাঞ্চলের বাইরে ১৫ হাজার টাকা ও আসামি ছাড়া এ দুটি প্রাণী সংক্রান্ত অপরাধ উদ্ঘাটনের তথ্যের জন্য ১০ হাজার টাকা পুরস্কারের কথা বলা হয়েছে।

হরিণে প্রথম ক্ষেত্রে ২০ হাজার টাকা, দ্বিতীয় ক্ষেত্রে ১৫ হাজার টাকা ও তৃতীয় ক্ষেত্রে তথ্যের জন্য পাঁচ হাজার টাকা পুরস্কার দেওয়া হবে। কচ্ছপ, সাপের তথ্য দিলে তিন ক্ষেত্রে যথাক্রমে ১৫ হাজার টাকা, ১০ হাজার টাকা ও পাঁচ হাজার টাকা পুরস্কার দেওয়ার কথা খসড়া বিধিমালায় উল্লেখ করা হয়েছে।

পাখি ও অন্যান্য বন্যপ্রাণীর ক্ষেত্রে তিন শ্রেণীতে ১০ হাজার টাকা, আট হাজার টাকা ও চার হাজার টাকা পুরস্কার দেওয়া হবে। পুরস্কার দিতে প্রধান বন সংরক্ষকের নেতৃত্বে সাত সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হবে।

বিধিমালায় বলা হয়েছে, অপরাধ উদ্ঘাটনের জন্য তথ্য প্রদানকারী লিখিত অথবা মৌখিকভাবে তথ্য দেওয়ার সময় তার নাম, ঠিকানা ও যোগযোগের মাধ্যম অবশ্যই উল্লেখ করবেন। তবে তথ্যদাতার নিরাপত্তার জন্য তার পরিচয় গোপন রাখা হবে।

তথ্য প্রধানকারীকে একটি পরিচিতি সংখ্যার মাধ্যমে শনাক্ত করা হবে। পুরস্কার বিতরণের ১৫ দিন আগে সরকার এ পরিচিতি সংখ্যা দিয়ে গেজেট প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে পুরস্কারের সিদ্ধান্ত জানাবে।

বিধিমালায় আরও বলা হয়েছে, কোনো তথ্য প্রদানকারী জীবন ঝুঁকিভীতির কারণে পুরস্কার সংগ্রহ করতে দেরি করতে পারবে। তবে তাকে আবেদনের মাধ্যমে পরবর্তী তিন মাসের মধ্যে ব্যক্তিগতভাবে বন অধিদফতরের কাছ থেকে তা সংগ্রহ করতে হবে। তিন মাস পর পুরস্কারের দাবি গ্রহণযোগ্য হবে না।

এই সংক্রান্ত আরো সংবাদ

শিল্পকলা পুরস্কার পেলেন ১৩ জন আলোকচিত্র শিল্পী

 ‘উন্নয়নের বাংলাদেশ, নান্দনিক বাংলাদেশ’ শিরোনামে শিল্পকলা একাডেমি আয়োজিত প্রতিযোগিতায় পুরস্কারবিস্তারিত পড়ুন

‘আমলাতন্ত্রকে ভেঙে গণমুখী বাজেট তৈরির আহ্বান’

জাতীয় বাজেটকে গণবান্ধব ও কর্মসংস্থানমুখী করতে হলে তেভাগা পদ্ধতিতে যেতেবিস্তারিত পড়ুন

চড়াই-উতরাই থাকবে হতাশ হবেন না: প্রধানমন্ত্রী

দেশের অর্থনৈতিক অবস্থার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন,বিস্তারিত পড়ুন

  • দাম বাড়ছেই ডিমের
  • শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ
  • নিরাপদে যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছালো বাংলাদেশ দল
  • নীতি সহায়তা যুক্ত হচ্ছে রফতানিতে
  • ৪ হাজার কোটির খুলনা-মোংলা রেলপথ প্রস্তুত 
  • বাকৃবি গবেষকের সাফল্য এই প্রথম সুস্বাদু দেশীয় শিং মাছের জিনোম সিকুয়েন্স উদ্ভাবন
  • এক ভিসায় ভ্রমণ করা যাবে উপসাগরীয় ছয় দেশ
  • আইসিসি পুরুষ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দল ঘোষণা
  • কমরেড রনো চির জাগরূক থাকবেন
  • উপজেলা নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে শোকজ শুরু করেছে বিএনপি
  • সমাজ পরিবর্তনে পোশাক শিল্প গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে : বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী
  • জাতির পিতার স্মৃতি বিজড়িত প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শনে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী