শনিবার, জুন ২২, ২০২৪

আমাদের কণ্ঠস্বর

প্রধান ম্যেনু

তারুণ্যের সংবাদ মাধ্যম

‘বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগে পিএসসির আদলে আলাদা কমিশন’

বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগে পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (পিএসসি)আদলে আলাদা কমিশন গঠন করতে যাচ্ছে সরকার। এর নাম- বেসরকারি শিক্ষক নির্বাচন কমিশন (এনটিএসসি)।

বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা বজায় রাখা এবং যোগ্যদের নিয়োগ দিতেই আলাদা কমিশন গঠনের প্রক্রিয়া চলছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

বুধবার দুপুরে সচিবালয়ে নিজ সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ইবতেদায়ি মাদরাসা, মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কলেজ ও মাদরাসায় মেধার ভিত্তিতে উপযুক্ত শিক্ষক নির্বাচনে আগেকার এনটিআরসিএ বিলুপ্ত করে আমরা পিএসসির আদলে বেসরকারি শিক্ষক নির্বাচন কমিশন (এনটিএসসি) গঠন করব। আশা করি, মাসখানেকের মধ্যে কমিশন গঠন করতে পারব। এর মধ্যে আমরা নতুন কমিশন গঠনে মতামত নেব। এতে অনেক ভুল-ত্রুটি ধরা পড়বে।’

আলাদা কমিশন গঠনের প্রয়োজনীয়তা প্রসঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে বর্তমানে পরিচালনা কমিটির মাধ্যমে শিক্ষক নিয়োগ হয়। এতে দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতি আর টাকার খেলা চলে। অভিযোগ ওঠে অস্বচ্ছ পক্রিয়ায় অযোগ্য লোক নিয়োগের। বর্তমান নিয়োগ পদ্ধতির কারণে প্রশ্ন উঠে। এ কারণে প্রকৃত মেধাবী ও যোগ্য লোকরা চাকরি পান না। আমরা আলাদা কমিশন গঠন করে স্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় মেধাবীদের বাছাই করব। আমরা শিক্ষক নিয়োগে স্বচ্ছতা আনতে চাই। এজন্যই বেসরকারি শিক্ষক নির্বাচন কমিশন গঠনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।’

শিক্ষামন্ত্রী আরো বলেন, ‘এই কমিশন পিএসসির মতোই শিক্ষক বাছাই করবে। দেশের শিক্ষা বিষয়ে দক্ষ, অভিজ্ঞ ও নিরপেক্ষ মেধাবী ব্যক্তিদের এই কমিশনের দায়িত্ব দেওয়া হবে। তারাই বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর চাহিদা মোতাবেক লিখিত এবং মৌখিক পরীক্ষার মাধ্যমে শিক্ষক নির্বাচন করবে। আশা করি, এতে প্রকৃত যোগ্যরা মূল্যায়ন পাবেন। সব পর্যায়ে শিক্ষার মান নিশ্চিত হবে।
‘জাতীয় শিক্ষানীতির পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নে বেসরকারি শিক্ষক নির্বাচন কমিশন (এনটিএসসি) গঠনে আমাদের কিছুটা সময় লাগতে পারে। ২০০৬ সালের বিদ্যমান বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা গ্রহণ ও প্রত্যয়ন বিধিমালা সংশোধনের মাধ্যমে যোগ্য শিক্ষক নিয়োগ নিশ্চিতের চেষ্টা করছি। এজন্য এর বিধিমালায়ও পরিবর্তন আনা হবে।’ কমিশন গঠনের মাধ্যমে শিক্ষানীতি বাস্তবায়নে এক ধাপ অগ্রগতি হবে বলে মনে করেন শিক্ষামন্ত্রী।

নুরুল ইসলাম নাহিদ জানান, ৪০ হাজার শূন্যপদের বিপরীতে শিক্ষক নিবন্ধনের ১২টি পরীক্ষায় ৫ লাখ ৪০ হাজার ৩২৯ জন উত্তীর্ণ হয়েছেন। চাকরি পেয়েছেন ৬৩ হাজার ৪২ জন। আর চাকরি পাননি (অপেক্ষমান) ৪ লাখ ৭৭ হাজার ২৮৭ জন। নতুন কমিশনের মাধ্যমে যোগ্যদের কর্মসংস্থান হবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা সচিব নজরুল ইসলাম খান, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) মহাপরিচালক ফাহিমা খাতুন প্রমুখ।

এ সময় শিক্ষা সচিব নজরুল ইসলাম খান বলেন, বছরের শেষভাগে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে শিক্ষকের চাহিদা সম্পর্কে কমিশন অবহিত হবে। আর বছরের শুরুতে সেই অনুপাতে শিক্ষক বাছাই করবে কমিশন। এতে চাহিদা আর সরবরাহের মধ্যে সামঞ্জস্য থাকবে।

শিক্ষা সচিব জানান, বর্তমানে প্রায় ৩ লাখের বেশি নিবন্ধিত শিক্ষক রয়েছেন। তাদের সমন্বয় করতে প্রায় তিন বছর লাগবে। এরপর চাহিদার ভিত্তিতেই শিক্ষক বাছাই করবে কমিশন।

শিক্ষা সচিব নজরুল ইসলাম সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, শিক্ষক নিয়োগের নিবন্ধন পরীক্ষায় পাস করে অনির্দিষ্টকাল বসে থাকার সুযোগ থাকছে না। শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় পাস করার পর তা তিন বছর কার্যকর থাকবে। তিন বছর পর তাকে আবার পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে।

এই সংক্রান্ত আরো সংবাদ

ঢাকা মেডিকেলে আটক ভুয়া চিকিৎসকের বিরুদ্ধে প্রতারণা মামলা

ঢাকা মেডিকেল হাসপাতাল (ঢামেক) থেকে আটককৃত ভুয়া চিকিৎসক রিপা আক্তারেরবিস্তারিত পড়ুন

সিরাজদিখানে আ.লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা

মুন্সীগঞ্জ সিরাজদিখান উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আগামী ২৩ জুন বাংলাদেশবিস্তারিত পড়ুন

ছুটি শেষে স্বস্তিতে কর্মস্থলে ফিরছে মানুষ, বেড়েছে ঢাকাগামী যানবাহনের চাপ

স্বজনদের সঙ্গে ঈদুল আজহার ছুটি কাটিয়ে কর্মস্থলে ফিরতে শুরু করেছেবিস্তারিত পড়ুন

  • পাঁচ দিনেও অপসারণ হয়নি কোরবানির বর্জ্য, অস্বস্তিতে বনশ্রীবাসী
  • আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বিএনপিকে দাওয়াত
  • সিলেটে বন্যার পানি কমলেও পানিবন্দি রয়েছে ১০ লাখ মানুষ
  • রাসেলস ভাইপার নিয়ে আতঙ্ক না ছড়িয়ে সচেতন হওয়ার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের
  • চাঁদপুরে যৌথ অভিযানে ১১ মণ জেলিযুক্ত চিংড়ি জব্দ
  • সুইস ব্যাংকে কমছে বাংলাদেশিদের আমানত, কী কারণ?
  • নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণে নয়া দিল্লি যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী
  • উসকানি দিলে যুদ্ধে জড়াবো না: ওবায়দুল কাদের
  • রাজধানীতে ফিরতে শুরু করেছেন কর্মজীবীরা
  • ১৪ দিনে রেমিট্যান্স এলো ১৬৪ কোটি ডলার
  • আছাদুজ্জামান মিয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতির তেমন অভিযোগ আসেনি, হলে বিচার হবে: ওবায়দুল কাদেরের
  • সিলেট বিভাগের বন্যা ভয়ঙ্কর রুপ নিচ্ছে