মঙ্গলবার, জুন ১৮, ২০২৪

আমাদের কণ্ঠস্বর

প্রধান ম্যেনু

তারুণ্যের সংবাদ মাধ্যম

ভারত কীভাবে নাকানিচুবানি খায় দেখিয়ে দিল বাংলাদেশ

২০০৩ সালে ভারতের কোচ হয়ে বাংলাদেশ সফরে এসেছিলেন। সেবার টিভিএস কাপ নামে ঢাকায় তিন দলের ওয়ানডে সিরিজ হয়েছিল। হয়তো তাঁর মনে থাকার কথা, সেই টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী ম্যাচে ভারতের ২৭৬ রানের জবাবে বাংলাদেশ করেছিল ঠিক ৭৬। তখনকার কোচ জন রাইট ব্যক্তিগত কাজে দেশে ফেরায় সেই সফরে ভারতের ভারপ্রাপ্ত কোচ অশোক মালহোত্রা কাল দেখলেন, কীভাবে এক যুগে বদলে গেছে দৃশ্যপট। শুরু হয়েছে নতুন যুগ। সেই ভারত ৭৯ রানের বড় ব্যবধানে হারল বাংলাদেশের কাছে।

‘নতুন বিশ্বনাথ’ হয়ে ওঠার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভারতীয় ক্রিকেটে আসা মালহোত্রার আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার অতটা লম্বা হয়নি। ক্রিকেট ছেড়ে পড়ে কোচিংয়ে সুনাম কুড়িয়েছেন। ব্যাটের বদলে মাঝেমধ্যে এখন হাতে তুলে নেন কলম। কলকাতার বাংলা দৈনিক আনন্দবাজারের জন্য যেমন আজ কলাম লিখেছেন। তাতে ভারতের কড়া সমালোচনার পাশাপাশি ভূয়সী প্রশংসা করেছেন বাংলাদেশ দলের অগ্রযাত্রার। দুই বছর আগে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য দলের কোচের দায়িত্ব নেওয়া মালহোত্রা লিখেছেন, ‘বাংলাদেশ দেখিয়ে দিল, কীভাবে ভারতের মতো তারকাখচিত দলকেও রীতিমতো নাকানিচুবানি খাইয়ে হারানো যায়।’

মাত্রই কিছুদিন আগে বাংলাদেশ নিজেদের মাটিতে লজ্জায় ডুবিয়েছে পাকিস্তানকে। সেখান থেকে শিখে ভারতের সাবধানী হওয়া উচিত ছিল বলে মনে করেন তিনি, ‘কয়েক সপ্তাহ আগে ঘরের মাঠেই পাকিস্তানকে ওয়ান ডে আর টি-টোয়েন্টিতে হারানোর আত্মবিশ্বাসটাই যেন বৃহস্পতিবার মিরপুরে তামিম ইকবালদের পারফরম্যান্সে ফুটে উঠল। ওই ঘটনার পরই ভারতের আরও সাবধান হওয়া উচিত ছিল। ওদের মনে রাখা দরকার ছিল ঘরের মাঠে মাশরাফিরা বিপজ্জনক হয়ে উঠতেই পারে।’ ভারতের অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাসই ধোনির দলকে ডুবিয়েছে বলে মনে করেন তিনি।
দারুণ একটা শুরুর পরও ২০ রানের মধ্যে ৪ উইকেট হারিয়েছিল ভারত। দলের বিপদের সময় ধোনি কেন দায়িত্ব নিয়ে আগে ব্যাটিংয়ে এলেন না, সেই প্রশ্ন তুলেছেন এই ৫৮ বছর বয়সী কোচ, ‘দলের ব্যাটিংয়ের এমন বেহাল অবস্থা যেখানে, সেখানে ক্যাপ্টেন আগে ভাগে নেমে দলের হাল ধরবে না কেন? বাংলাদেশের বোলাররা দুর্দান্ত বল করছে বলে হাল ছেড়ে দিয়ে বসে থাকব!’
মালহোত্রা লিখেছেন, ‘তামিম ইকবাল আর সৌম্য সরকারের মতো ব্যাটিং ভারতের তারকা ব্যাটসম্যানরা করতে পারল না কেন, এটাই আমার কাছে বিস্ময়ের।’ তাঁর আরও বিস্ময় বাংলাদেশের ঝোড়ো শুরু, ‘বাংলাদেশের ইনিংসের এক শ রান উঠল ৭৯ বলে!’

বাংলাদেশ চার পেসার নিয়ে খেলে সফল হয়েছে। কিন্তু তিনি মনে করেন, ভারতের একজন বাড়তি স্পিনারই নেওয়া উচিত ছিল। শুধু তা-ই নয়, পার্টটাইম স্পিনার রায়না এভাবে বোলিংটা না করলে ভারত আরও বড় ব্যবধানে হারত বলে মনে করেন তিনি, ‘রায়না ১০ ওভারে রান দিয়েছে ৪০। ও না থাকলে সাড়ে তিন শ তুলত বাংলাদেশ।’

এই সংক্রান্ত আরো সংবাদ

আফগানিস্তানকে বিশাল ব্যবধানে হারালো ওয়েষ্ট ইন্ডিজ

মঙ্গলবার (১৮ জুন) গ্রস আইসলেটে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের গ্রুপ ‘সি’ এরবিস্তারিত পড়ুন

নেপালকে হারিয়ে সুপার এইটে বাংলাদেশ

নেপালের বিরুদ্ধে ২১ রানে জয়ে টি২০ বিশ্বকাপে সুপার এইট নিশ্চিতবিস্তারিত পড়ুন

অস্ট্রেলিয়ার জয়ে ইংল্যান্ড সুপার এইটে

বিশ্বকাপ টি২০ ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার বনাম স্কটল্যান্ড ম্যাচে কোনো অঘটন ঘটেনি।বিস্তারিত পড়ুন

  • বিশ্বকাপে একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে যে রেকর্ড গড়লেন সাকিব
  • বাংলাদেশের সেরা আটে যাওয়ার লড়াই আজ 
  • টিম ম্যানেজমেন্টকে মধুর বিড়ম্বনায় ফেলছেন তানজিম
  • শ্রীলঙ্কা-নেপাল ম্যাচ বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত
  • জিততে জিততে বাংলাদেশ হেরে গেল
  • ডালাসে শ্রীলঙ্কাকে ২ উইকেটে হারিয়ে বিশ্বকাপে শুভসূচনা বাংলাদেশের
  • বিশ্বকাপে উগান্ডাকে উড়িয়ে আফগানদের শুরু 
  • হার দিয়ে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি সারলো বাংলাদেশ 
  • ফাইনালে হেরে কাঁদলেন রোনালদো
  • ভোটগ্রহণ শেষে চলছে গণনা
  • সানরাইজার্স-নাইট রাইডার্স আইপিএল ফাইনাল রোববার
  • আরও এক হারে সিরিজ খোয়ালো বাংলাদেশ