শনিবার, জুলাই ২০, ২০২৪

আমাদের কণ্ঠস্বর

প্রধান ম্যেনু

তারুণ্যের সংবাদ মাধ্যম

স্ত্রীকে না জানিয়ে মাকে টাকা দিলে কি গুনাহ হবে?

নামাজ, রোজা, হজ, জাকাত, পরিবার, সমাজসহ জীবনঘনিষ্ঠ ইসলামবিষয়ক প্রশ্নোত্তর অনুষ্ঠান ‘আপনার জিজ্ঞাসা’। জয়নুল আবেদীন আজাদের উপস্থাপনায় এ অনুষ্ঠানে দ‍র্শকের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন বিশিষ্ট আলেম ড. মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ।

আপনার জিজ্ঞাসার ১৭২৪তম পর্বে ইমেইলে স্ত্রীর উপার্জিত অর্থ তাঁর অনুমতি ব্যতীত খরচ করার মাসালা সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন বেল্লাল হোসেন। অনুলিখন করেছেন মুন্সী আব্দুল কাদির।

প্রশ্ন :আমরা তিন ভাই এক বোন। ছোটবেলায় আমার বাবা মারা যান। আমাদের লালন পালন করতে গিয়ে মায়ের অনেক টাকা ঋণ হয়েছে। ঋণ পরিশোধ করা মায়ের পক্ষে সম্ভব নয়। আমি বিয়ে করেছি। আমরা দুজনই চাকরি করি। আমার ছোট ভাইবোন লেখাপড়া করে। মায়ের ঋণ পরিশোধ এবং ছোট ভাইবোনের লেখাপড়ার জন্য আমার টাকা এবং আমার স্ত্রীর টাকা থেকে প্রতি মাসে একটা নির্দিষ্ট অঙ্কের টাকা পাঠাই, যা আমার স্ত্রী জানেন এবং তাঁর মতামত নিয়েছি। আমি জানতে চাই, মায়ের ঋণ পরিশোধের জন্য আমার এবং আমার স্ত্রীর টাকা থেকে যদি বেশি করে টাকা পাঠাই, যা আমার স্ত্রী জানবেন না, তাহলে কি আমার গুনাহ হবে?

উত্তর :অত্যন্ত সুন্দর প্রশ্ন করেছেন। প্রথম কথা হচ্ছে, আপনার মায়ের যে ঋণ হয়েছে, সে ক্ষেত্রে আপনি উল্লেখ করেছেন যে, এ ঋণ হয়েছে মূলত আপনাদের লালন-পালনের কাজে ব্যয় করার কারণেই। যেহেতু তিনি এই কাজে ব্যয় করেছেন এবং আপনাদের জন্যই সেই সম্পদ ব্যয় করেছেন তাই ওয়াজিব হচ্ছে সেই ঋণ পরিশোধ করে দেওয়া। এটি আপনাদের এখন পরিশোধ করা প্রয়োজন, অন্যথায় তিনি এ টাকা পরিশোধ করতে পারবেন না। তাই আপনি আপনার সম্পদ থেকে যেভাবে ইচ্ছা খরচ করতে পারেন। এটা আপনার স্ত্রীকে জানানোর প্রয়োজন নেই। এবং আপনি আপনার মায়ের যে ঋণ আছে সেটা পরিশোধের জন্য চেষ্টা করুন। কারণ, মা যতক্ষণ পর্যন্ত ঋণগ্রস্ত থাকবেন, ততক্ষণ পর্যন্ত তিনি মানসিকভাবে ও শারীরিকভাবে স্বস্তি পাবেন না। আর সেটা আপনাদের জন্যও কল্যাণকর হবে না। তাই আপনি চেষ্টা করুন আপনার নিজের সম্পদ থেকে যথাসম্ভব মায়ের যে ঋণ আছে সেটা পরিশোধ করার জন্য। এ ক্ষেত্রে যদি স্ত্রীকে জানানোর প্রয়োজন মনে করেন, জানাতে পারেন। তাতে অসুবিধা নেই।

তবে আপনার স্ত্রীকে না জানিয়ে তাঁর টাকা থেকে টাকা পাঠাতে পারবেন না। এটা জায়েজ নেই। এটা করলে আপনার স্ত্রীর হক নষ্ট করা হবে এবং তাঁর আমানতের খেয়ানত করা হবে। আপনি আপনার স্ত্রীর উপার্জিত টাকা থেকে মায়ের ঋণ পরিশোধের জন্য টাকা পাঠাতে চাইলে অবশ্যই তাঁর সঙ্গে পরামর্শ করেই পাঠাতে হবে। কারণ, স্ত্রীর সম্পদের অধিকারী স্বামী নন। তাই স্ত্রীকে না জানিয়ে তাঁর টাকা পাঠালে আপনি গুনাহগার হবেন। এনটিভি

এই সংক্রান্ত আরো সংবাদ

ঈদের ছুটির পর বুধবার থেকে নতুন অফিস সময়সূচি

পবিত্র ঈদুল আজহার পর সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও আধা স্বায়ত্তশাসিতবিস্তারিত পড়ুন

সৌদিতে হজে বিভিন্ন দেশের ৫৫০ হাজির মৃত্যু

সৌদি আরবে এ বছর হজ পালনে গিয়ে কমপক্ষে ৫৫০ জনবিস্তারিত পড়ুন

ঈদে ১ কোটি ৪ লাখ ৮ হাজার ৯১৮ টি গবাদিপশু কোরবানি

এ বছর পবিত্র ঈদুল আজহায় সারাদেশে মোট ১ কোটি ৪বিস্তারিত পড়ুন

  • ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের শতভাগ বর্জ্য অপসারণ
  • দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন প্রধানমন্ত্রী
  • সৌদি আরবে হজ পালনের সময় অন্তত ১৯ জনের মৃত্যু
  • ঈদের নামাজ শেষে চলছে কোরবানি
  • হাজিদের গরম থেকে বাঁচাতে যে প্রযুক্তি ব্যবহার করলো সৌদি
  • জমজমাট শপিংমল-মার্কেট
  • ‘লাব্বাইক আল্লাহুম্মা লাব্বাইক’ ধ্বনিতে মুখর হবে আরাফাত ময়দান
  • উত্তরাঞ্চলের ঈদযাত্রা হবে নির্ঝঞ্জাট
  • শিকড়ের টানে বাড়ি ফিরছে মানুষ, ফাকা হচ্ছে ঢাকা
  • জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে কোরবানীর পশুর চামড়া সংরক্ষণ ও বিপণন প্রশিক্ষণ
  • ঈদযাত্রায় এবার ১২ জায়গায় ভোগান্তির শঙ্কা
  • সৌদি আরবে পৌঁছেছেন ৮২ হাজারের বেশি হজযাত্রী