শনিবার, জুলাই ১৩, ২০২৪

আমাদের কণ্ঠস্বর

প্রধান ম্যেনু

তারুণ্যের সংবাদ মাধ্যম

১ গ্লাস ডাবের পানি ৭ টি স্বাস্থ্য সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে

গরমকালে আমাদের পানীয় একটু বেশিই পান করা হয়। বিশেষ করে সফট ড্রিংকস ধরণের অতিরিক্ত ক্যালরি ও চিনিযুক্ত পানীয়ের প্রতিই আমাদের ঝোঁকটা বেশি থাকে। কিন্তু সুস্থ থাকতে চাইলে এবং সত্যিকার অর্থেই গরমের প্রকোপ থেকে মুক্ত থাকতে নিয়মিত ডাবের পানি পান করার অভ্যাস করা উচিত। প্রতিদিন মাত্র ১ গ্লাস ডাবের পানি পান করার অভ্যাস আপনাকে শুধু গরম থেকেই রেহাই দেবে না, এর পাশাপাশি মুক্ত রাখবে ৭ ধরণের শারীরিক সমস্যা থেকে।

১) কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা দূর করে

ডাবের পানি খাবার হজমে বিশেষভাবে সহায়ক। এতে করে বদহজমের কারণে কোষ্ঠকাঠিন্যের মতো সমস্যা নিয়মিত ডাবের পানি পান করার অভ্যাসে সহজেই দূর করা সম্ভব।

২) হজম সমস্যা দূর করে

প্রতিদিন অন্তত ১ গ্লাস ডাবের পানি পান করার ফলে বুকজ্বলা, হজম সমস্যা, অ্যাসিডিটি, পেট ফাঁপার সমস্যা দূরে থাকে। খাবার হজমে সহায়তা করে হজম সংক্রান্ত সকল সমস্যা দূর করে ডাবেন পানি।

৩) ওজন কমাতে সহায়তা করে

ওজন কমানোর জন্য ডায়েটিং করছেন? তাহলে অন্যান্য পানীয়ের মধ্যে বেছে নিন ডাবের পানি। যেকোনো চিনিযুক্ত ফলের জুসের চাইতে বেশি কার্যকরী এই ডাবের পানি। কারণ ডাবের পানিতে বিন্দুমাত্র ফ্যাট নেই।

৪) রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে

রিবোফ্লেবিন, নিয়াসিন, থায়ামিন এবং পেরিডক্সিন সমৃদ্ধ ডাবের পানি দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা উন্নত করতে সহায়তা করে। এছাড়া ডাবের পানির অ্যান্টিভাইরাল ও অ্যান্টিব্যকটেরিয়াল উপাদান বিভিন্ন ধরনের ভাইরাসের আক্রমণ থেকেও রক্ষা করতে সহায়তা করে।

৫) কিডনির সমস্যা দূরে রাখে

ডাবের পানিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে কার্যকরী মিনারেল যেমন, পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম। এই মিনারেল সমূহ কিডনির বিভিন্ন ধরনের রোগ প্রতিরোধে সহায়তা করে এবং ডাবের পানি ইউরিনের কোনো সমস্যা দূর করে।

৬) ত্বকের সুরক্ষা করে

ডাবের পানি ত্বকের জন্য বিশেষভাবে কার্যকরী। নানা সমস্যা যেমন ভ্রন, মেছতা, ছোপ ছোপ দাগ, উজ্জ্বলতা হারানো, ত্বকের ইনফেকশন এইসব সমস্যা দূর করে নিয়মিত ডাবের পানি পান করার অভ্যাস। পানের পাশাপাশি ত্বকে সরাসরি ডাবের পানি ব্যবহারও অনেক উপকারী।

৭) উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা নিয়ন্ত্রনে রাখে

ডাবের পানির প্রাকৃতিক মিনারেলস শরীরের রক্ত সঞ্চালন স্বাভাবিক রাখে এবং সেই সাথে উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা নিয়ন্ত্রণ করে। এতে করে হৃদরোগের ঝুঁকি কমে এবং এর পাশাপাশি অন্যান্য কার্ডিওভ্যসকুলার রোগের সম্ভাবনা কমে।

এই সংক্রান্ত আরো সংবাদ

মানবদেহে আদার অনেক উপকার

আমাদের দিনে কয়েকবার রঙিন খাবার খাওয়া উচিত, কিন্তু আপনি কিবিস্তারিত পড়ুন

রেড মিট খাওয়ার আগে কিছু পরামর্শ জেনে নিন

কোরবানি ঈদে বেশ কয়েকদিন টানা খাওয়া হয় গরু বা খাসিরবিস্তারিত পড়ুন

জাপান ও ইউরোপে বিরল রোগে আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ

জাপানে, একটি বিরল “মাংস খাওয়া ব্যাকটেরিয়া” এর কারণে এক রোগবিস্তারিত পড়ুন

  • ডেঙ্গুতে একজনের মৃত্যু
  • কোন খাবার কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে
  • ধনিয়া পাতার উপকারি গুণ
  • ওজন কমাতে যা খাওয়া যেতে পারে
  • প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় রসুন
  • ফুড সিস্টেম ড্যাশবোর্ড নীতিমালা প্রণয়ন ও গবেষণা কার্যক্রমকে সহজ করবে : খাদ্য সচিব
  • আমলকি কখনো স্বাস্থ্যের জন্য ‘বিপজ্জনক’ হয়ে ওঠে
  • বিশ্বের শক্তিশালী এমআরআই মেশিনে মস্তিষ্কের প্রথম চিত্র প্রকাশ
  • H5N1 ভাইরাস ছড়াচ্ছে, কোভিডের চাইতে 100 গুণ বেশি বিপজ্জনক
  • কত দিন পর পর টুথব্রাশ বদলাবেন?
  • ত্বকের দাগ দূর করার ঘরোয়া উপায়
  • তরমুজ খেলে কি সত্যিই ওজন কমে?