বুধবার, এপ্রিল ১৭, ২০২৪

আমাদের কণ্ঠস্বর

প্রধান ম্যেনু

তারুণ্যের সংবাদ মাধ্যম

কুকুর কীভাবে রক্ত দেয়?

কিছু জটিল রোগ যেমন থ্যালাসেমিয়া এবং ব্লাড ক্যানসারের রোগীদের একটি নির্দিষ্ট সময় পরপর রক্তের প্রয়োজন হয়। এ ছাড়া অস্ত্রোপচারের সময়ও প্রয়োজন হয় রক্তের। রক্তের গ্রুপ মিলে গেলেই প্রয়োজনে একজনের শরীর থেকে অন্যজন নেয় রক্ত। আমাদের দেশে পশুপাখিদের অস্ত্রোপচারের বিষয়টি প্রায় শোনা যায় না বললেই চলে। তবে উন্নত বিশ্বে হরহামেশাই ঘটে এই ঘটনা। পশুপাখিদের অস্ত্রোপচারের সময় কী রক্তের প্রয়োজন হয় না? হলে কীভাবে পাওয়া যায় সেই রক্ত?

কুকুর কীভাবে রক্ত দেয়?—এ বিষয়ে একটি ফিচার প্রকাশ করেছে বিবিসি। এতে কুকুরের রক্তের গ্রুপ বা কত দিন পরপর একটি কুকুর রক্ত দিতে পারে এ বিষয়ে কিছু বলা না হলেও কুকুরের রক্তদানের বিষয়টি বিস্তারিত তুলে আনা হয়েছে। হ্যাঁ! একটু অবাক হলেও যুক্তরাজ্যে নিয়মিতই রক্তদান কর্মসূচি পালন করা হয় কুকুরদের জন্য। যেহেতু কুকুরকেও অস্ত্রোপচার এবং অন্যান্য জটিল চিকিৎসার মধ্য দিয়ে যেতে হয়, তাই প্রয়োজন হয় রক্তের। এবং সে রক্ত সংগ্রহ করা হয় অন্য কুকুরের কাছ থেকে।

যুক্তরাজ্যে কুকুরের জন্য জাতীয় পর্যায়ে আছে ব্লাড ব্যাংক সুবিধা। এই সুবিধার নাম ‘পেট ব্লাড ব্যাংক’। প্রায় আট বছর ধরে এই ব্লাড ব্যাংকটি পরিচালিত হয়ে আসছে। তালিকায় আছে ছয় হাজারেরও বেশি কুকুর। ব্লাড ব্যাংকটি সপ্তাহে গড়ে তিনটির মতো রক্ত দান কর্মসূচি পালন করে এবং প্রতিবারে রক্ত দেয় ২২ টির মতো কুকুর।

ব্লাড ব্যাংকটি একটি দাতব্য সংস্থা হিসেবে পরিচালিত হয়। পরিসংখ্যানে দেখা যায় কুকুরের রক্ত দানের এই প্রবণতা বাড়ছে বাড়ছে দিন দিন। সংস্থাটির প্রথম বছরে রক্তদান কর্মসূচি করেছিল একশটি। সে সময়ে দুই শয়েরও কিছু বেশি কুকুরের কাছ থেকে মাত্র পাঁচ শ ইউনিট রক্ত সংগৃহীত হয়েছিল। অথচ বর্তমানে বছরে গড়ে পাঁচ হাজারেরও বেশি ইউনিট রক্ত সংগৃহীত হয়।
তবে যেকোনো কুকুরই চাইলে রক্ত দিতে পারে না। রক্ত দেওয়ার যোগ্য হতে হলে কিছু শর্ত পূরণ করতে হয় রক্ত দিতে ‘ইচ্ছুক’ কুকুরটিকে। যেতে হয় একটি স্ক্রিনিংয়ের মধ্য দিয়ে। কুকুরটিকে অবশ্যই ভালো স্বাস্থ্যের অধিকারী হতে হবে। স্বাভাবিক থাকতে হবে কুকুরের শরীরের তাপমাত্রা, হৃৎস্পন্দন এবং শ্বাস-প্রশ্বাস। ওজন হতে হবে ২৫ কেজি। এ সব শর্ত পূরণ করেও কুকুরটি রক্ত দেওয়ার উপযোগী হবে না যদি বাইরের কোনো দেশ ভ্রমণের অভিজ্ঞতা থাকে কুকুরটির!

মানুষের হাতের শিরা থেকে রক্ত নেওয়া হলেও কুকুরের রক্ত নেওয়া হয় ঘাড়ের শিরা থেকে। মানুষের যেমন রক্ত দেওয়ার পূর্বে রক্তের গ্রুপ এবং অন্যান্য রোগের পরীক্ষার জন্য রক্তের নমুনা সংগ্রহ করা হয় কুকুরের কাছ থেকেও সংগ্রহ করা হয় তেমন রক্তের নমুনা। এই নমুনা রক্ত নেওয়া হয় ঘাড় অথবা পায়ের শিরা থেকে। রক্ত নেওয়ার জন্য সুই ঢোকানোর রক্ত নেওয়ার স্থানের লোম পরিষ্কার করে নেওয়ার নিয়ম। তবে যদি লোম পরিষ্কার না করেও শিরা খুঁজে পাওয়া যায় তবে সে অবস্থাতেই রক্ত সংগ্রহ করা হয়।

সংগৃহীত নমুনা থেকে মোট শ্বেত এবং লোহিত রক্ত কণিকা পরীক্ষা করা হয়। এ সব পরীক্ষার পর যদি কুকুরটি রক্ত দেওয়ার উপযোগী হয় তবে কুকুর এবং এর মালিককে অস্ত্রোপচারের কক্ষে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে নির্দিষ্ট বিছানায় শুয়ে অপেক্ষা করা হয় কুকুরটি শান্ত হওয়ার জন্য। শান্ত হয়ে আসলে ঘাড়ের শিরায় সুই ঢুকিয়ে ৪৫০ মিলিলিটার রক্ত সংগ্রহ করা হয়। এই পরিমাণ রক্ত নিয়ে সময় লাগে পাঁচ থেকে ১০ মিনিট। মজার বিষয় হচ্ছে এই পুরো সময়টিতে কুকুরটিকে বিভিন্ন রকম প্রশংসার বাণী শুনিয়ে আশ্বস্ত করা হয়।

পেট ব্লাড ব্যাংকের পশুচিকিৎসা তত্ত্বাবধায়ক জেনি ওয়ালটন বলেন, এই প্রক্রিয়াটি কষ্টকর নয়। অনেক কুকুরই কয়েক বছর ধরে রক্ত দিচ্ছে। বারবার রক্ত দিয়েছে এমন কুকুরই আমাদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। আমরা দেখি কুকুরটি তাঁর লেজ নাড়ছে কি না। তিনি বলেন, যদি কোনো কারণে কুকুরটিকে দেখে মনে হয় সেটির ওপর দিয়ে ধকল যাচ্ছে সঙ্গে সঙ্গেই রক্ত নেওয়া বন্ধ করে দেওয়া হয়।

এখানেই শেষ নয়। রক্তদান শেষে কুকুরটিকে খাবার, পানি ও একটি খেলনা দেওয়া হয়। দেওয়া হয় বিশ্রাম নেওয়ার সময়। সবশেষে একটি লাল ব্যান্ডেনা কুকুরটিকে উপহার দেওয়া হয় যা দেখে সবাই বুঝতে পারবে রক্ত দেওয়ার মতো ‘গর্বিত’ একটি কাজ করেছে কুকুরটি।

সংগৃহীত রক্তের থলেটি এর প্রক্রিয়াকরণের জন্য পাঠিয়ে দেওয়া হয় ল্যচাচ্টার্শায়ারে। সেখানে রক্তের রোহিত কণিকা থেকে প্লাজমাকে আলাদা করে ফেলা হয়। এরপর আলাদা আলাদাভাবে লোহিত রক্ত কণিকা এবং প্লাজমা দুটোকেই সংরক্ষণ করা হয়। একজন পশুচিকিৎসকের রক্তের প্রয়োজন হলেই এখান থেকে সরবরাহ করা হয়। প্লাজমাকে পাঁচ বছর পর্যন্ত হিমায়িত করে রাখা যায় এবং লোহিত কণিকাকে ফ্রিজে সংরক্ষণ করা যায় প্রায় ছয় সপ্তাহ পর্যন্ত।

এই সংক্রান্ত আরো সংবাদ

কঠিন রোগে ভুগছেন হিনা খান, চাইলেন ভক্তদের সাহায্য

ভারতীয় টেলিভিশন অভিনেত্রীদের মধ্যে হিনা খানের সাজপোশাক নিয়ে চর্চা লেগেইবিস্তারিত পড়ুন

কান্না জড়িত কন্ঠে কুড়িগ্রামে পুলিশের ট্রেইনি কনস্টেবল

আমার বাবা ভিক্ষা করতো, মা রাজমিস্ত্রীর কাজ করতো। সংসারে খুববিস্তারিত পড়ুন

অজানা গল্পঃ গহীন অরণ্যে এক সংগ্রামী নারী

গাজীপুরের শ্রীপুরের মাওনা ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের একটি গ্রাম ফুলানিরসিট। সেবিস্তারিত পড়ুন

  • মৌলানা পাস দিয়েছিলেন তারেক মাসুদ
  • আজ শুভ জন্মদিন হুমায়ূন আহমেদ স্যার এর, আয়োজন জুড়ে যা যা থাকছে
  • অভিনেতা ডিপজল দেশে ফিরবেন বৃহস্পতিবার: কি অবস্থায় আছেন তিনি !
  • ড. ইউনূস ফ্রান্সে সম্মাননা নাগরিকত্ব পেলেন
  • সুপারস্টার মেসিকে দেখতে চাকরি বিসর্জন দিলেন এক মেসিভক্ত !
  • দুই হাতে লেখে যে স্কুলের শিক্ষার্থীরা !
  • বাংলাদেশপ্রেমী ফাদার মারিনোর শেষ ইচ্ছা পূরণ হলো না !
  • বন্ধু ফাদার মারিনো রিগন আর নেই !
  • স্মার্টফোন কিনে লাখপতি হলেন পারভেজ
  • ‘সন্তানকে আগুনে ছুড়ে আমাকে ধর্ষণ করে সেনারা’
  • বিয়ের পূর্বে তিনি আগের স্ত্রীদের কাছ থেকে অনুমতি নেনঃ চল্লিশ বছরে ১২০ বিয়ে!
  • কেবল চা-পানি পান করে ৬০টি বছর পার করে দিল