সোমবার, জুলাই ১৫, ২০২৪

আমাদের কণ্ঠস্বর

প্রধান ম্যেনু

তারুণ্যের সংবাদ মাধ্যম

নারী আইনজীবীর নাক ফাটিয়ে দিলেন স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা

চট্টগ্রাম জজকোর্টের আইনজীবী পারভীন আক্তার পাপিয়াকে ঘুষি মেরে নাক ফাটিয়ে দিয়েছেন স্বেচ্ছাসেবক লীগের এক নেতা।

গতকাল বুধবার আদালত প্রাঙ্গণেই এ ঘটনা ঘটে। আহত আইনজীবী পাপিয়া আগের দিনই বিয়ে করেন।

এ ঘটনায় মহানগরীর বায়েজিদ বোস্তামী থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য সোলায়মানকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

প্রত্যক্ষদর্শীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ঘটনার দিন বার কাউন্সিলের ফরম পূরণ করা নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন পাপিয়া। আদালত চত্বরের রাস্তায় হুড়োহুড়ি করে পথ চলতে গিয়ে সোলায়মানের সঙ্গে তাঁর ধাক্কা লাগে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওই ব্যক্তি তাঁকে কিল-ঘুষি মারেন। এতে নাক থেকে ঝর ঝর করে রক্ত বেরোতে থাকে।

এ ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন চট্টগ্রামের আইনজীবীরা। ঢাকার আদালতের অনেক আইনজীবীও পাপিয়াকে মারধরের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। বিচার দাবি করেছেন এ ঘটনায় জড়িত স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার।

ঢাকা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের আইনজীবী মাহফুজুর রহমান বলেন, ‘অন্য কোনো পেশাজীবী এই হামলার শিকার হলে তারা কাজ বন্ধ রেখে ঠিকই আন্দোলন করত। কিন্তু আমাদের মধ্যে এ সুযোগ নেই। তবে ঘটনাটি খুব বেদনাদায়ক। অপরাধীকে দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা উচিত।’

আরেক আইনজীবী ইব্রাহিম খলিল ক্ষোভ প্রকাশ করে ফেসবুকে লেখেন, ‘আইনজীবীর ওপর হামলাকারী শনাক্ত। নাম সোলাইমান ওরফে রুবেল। পাপিয়া গত মঙ্গলবার বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হলেও হাতের মেহেদি এখনো শুকায়নি। রাস্তা ছেড়ে দাঁড়াতে বলা, এটাই কি পাপিয়ার অপরাধ?’

ইব্রাহিম খলিল বলেন, ‘আমরা আইনজীবী সরকার স্বীকৃত প্রথম শ্রেণির নাগরিক, কোর্ট অফিসার। অথচ আমাদের কোর্ট প্রাঙ্গণে আমাদের ওপর হামলা। রাস্তা ছেড়ে দাঁড়াতে বলাতে ঘুষি মেরে নাক ফাটিয়ে দিয়েছে। তাকে দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা উচিত।’

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অজিত শীল বলেন, নারী আইনজীবীকে মারধর ন্যক্কারজনক ঘটনা। এটা শ্লীলতাহানির শামিল। তিনি এ ঘটনায় দায়ী ব্যক্তিকে গ্রেপ্তারের জোর দাবি জানান।

চট্টগ্রাম আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবু হানিফ বলেন, বার কাউন্সিলের নিবন্ধন পরীক্ষায় ফরম জমা দেওয়ার শেষ দিনে গতকাল চট্টগ্রাম আদালত চত্বরে গিয়েছিলেন পাপিয়া। পথে সোলায়মানের সঙ্গে তাঁর ধাক্কা লাগে। এ সময় বিষয়টির প্রতিবাদ করলে কথাকাটাকাটি হয়। এরপর সোলায়মান তাঁকে ঘুষি মেরে নাক ফাটিয়ে দেন। পরে অন্য আইনজীবীরা সোলায়মানকে ধরে আইনজীবী সমিতির অফিসে নিয়ে যান।

এদিকে, পাপিয়াকে মারধরের ঘটনায় নগরীর কোতোয়ালি থানায় মামলা করেছেন তাঁর স্বামী সিরাজুল ইসলাম।

মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট এইচ এম জিয়াউদ্দিন বলেছেন, বায়েজিদ বোস্তামী থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগ আহ্বায়ক কমিটির সদস্য সোলায়মান দোষী প্রমাণ হলে তাঁর বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সোলায়মানকে কারাগারে পাঠিয়েছেন চট্টগ্রাম মহানগর বিচারিক হাকিম। আজ তাঁর পক্ষে কোনো আইনজীবী শুনানিতে অংশ নেননি।

এই সংক্রান্ত আরো সংবাদ

চট্টগ্রামে চিনির গুদামে আগুন- ১৭ ঘণ্টা পরও পুরোপুরি নেভেনি

গতকাল (৪ মার্চ) বিকালে চট্টগ্রামের কর্ণফুলী উপজেলার ঈসানগর এলাকায় অবস্থিতবিস্তারিত পড়ুন

পাল্টাপাল্টি অবস্থানে ছাত্রলীগ চবিতে

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) শিক্ষক আমীর উদ্দিনকে অপসারণ ও লাঞ্ছনার বিষয়েবিস্তারিত পড়ুন

ঋণের বোঝা নিয়ে দম্পতির ‘আত্মহত্যা’

মন্দিরের পাশেই কুঁড়েঘরে থাকতেন পুরোহিত স্বপন দে ও তাঁর স্ত্রীবিস্তারিত পড়ুন

  • আজ খুলে দেয়া হচ্ছে চট্রগ্রামের আখতারুজ্জামান চৌধুরী ফ্লাইওভার
  • চট্টগ্রামে মিনিবাস উল্টে নিহত ২
  • চট্টগ্রামে মন্দিরে হামলা-অগ্নিসংযোগ, সড়ক অবরোধ
  • ক্রিকেট নিয়ে মারামারি: আহত স্কুলছাত্রের মৃত্যু
  • চট্টগ্রামে ৬ ঘন্টার বৃষ্টিতে লাখো মানুষ পানিবন্দি
  • চট্টগ্রামে ইয়াবাসহ ২ পুলিশ কনস্টেবল গ্রেপ্তার
  • অ্যাম্বুলেন্সে থাকা পাকিস্তানের পতাকা ছিঁড়ে ফেললো চবি ছাত্রলীগ
  • সন্দ্বীপে নৌকাডুবি, ৪ লাশ উদ্ধার
  • ‘পুলিশ মেরে বেহেশতে যেতে চায় জঙ্গিরা’
  • ট্রেনে কাটা পড়ে দুইজনের মর্মান্তিক মৃত্যু
  • সীতাকুণ্ডে জঙ্গি আস্তানা : চার মামলা পুলিশের