শনিবার, জুলাই ২০, ২০২৪

আমাদের কণ্ঠস্বর

প্রধান ম্যেনু

তারুণ্যের সংবাদ মাধ্যম

পাসপোর্ট জালিয়াতি: স্বামীর অগোচরে স্ত্রীকে তালাক!

তিনি একজন ধনাঢ্য ব্যবসায়ী। ব্যবসার কাজে প্রায়ই তাকে বিভিন্ন দেশে যাতায়াত করতে হয়। কিছুদিন আগে তিনি মালয়েশিয়া যাওয়ার প্রস্তুতি নেন। যাওয়ার দিন বিমানবন্দরের সব আনুষ্ঠানিকতা প্রায় শেষ। বোর্ডিং পাসও নিয়েছেন। কনভেয়ার বেল্টে লাগেজ তুলে দাঁড়িয়েছেন ইমিগ্রেশন কাউন্টারে। কিন্তু ইমিগ্রেশন পার হতে গিয়ে তিনি পড়লেন এক অপ্রত্যাশিত ঝামেলায়। অভিবাসন পুলিশের কথা শুনে বিস্ময়ে তার বাকশক্তি বন্ধ হওয়ার উপক্রম। কারণ ইমিগ্রেশন পুলিশ তাকে আটকে রেখে যা বলছে তা মোটেও বিশ্বাসযোগ্য নয়। পুলিশ তার পাসপোর্ট দেখে বলছে, এ পাসপোর্টের বিপরীতে তারই নামে আরেকটি পাসপোর্ট ইস্যু করা হয়েছে। এমনকি নতুন পাসপোর্টে তার স্ত্রীকে তালাক দেয়ার তথ্যও রয়েছে। তাই তিনি পুরনো পাসপোর্ট দিয়ে কোনোভাবেই বিদেশ যেতে পারবেন না। পুলিশের এসব কথা শুনে প্রতিবাদের ভাষাও হারিয়ে ফেলেন তিনি। খবর যুগান্তর’র।

চাঞ্চল্যকর পাসপোর্ট জালিয়াতির এ ঘটনা প্রকাশ পায় গত সপ্তাহে। পাসপোর্ট অধিদফতরের প্রধান কার্যালয়ে এসে ওই ব্যবসায়ী যখন তার ভোগান্তির কথা মহাপরিচালককে বলছিলেন তখন সেখানে উপস্থিত ছিলেন যুগান্তরের প্রতিবেদক।

ওই ব্যবসায়ী মহাপরিচালককে বলেন, ইমিগ্রেশন পুলিশের বাধার মুখে পড়ে তিনি এখানে-ওখানে ফোন করেন। কিন্তু কিছুতেই কিছু হচ্ছিল না। এরপর তিনি একটি গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর কাছে টেলিফোন করেন। ওই মন্ত্রীর সহায়তায় কোনোমতে তিনি ইমিগ্রেশন পার হতে সক্ষম হন।

এরপর মালয়েশিয়া সফর সংক্ষিপ্ত করে দেশে ফিরেই তিনি হাজির হন পাসপোর্ট অধিদফতরে। সব খুলে বলেন মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মাসুদ রেজওয়ানকে। সব শুনে তাৎক্ষণিকভাবে এ সংক্রান্ত ফাইল তলব করেন।

ফাইলেও দেখা যায়, অবিশ্বাস্য জালিয়াতির তথ্য। ওই ব্যবসায়ীর পাসপোর্টটি জাল করতে অভিনব কৌশল বেছে নেয় জালিয়াত চক্র। তার পাসপোর্ট নম্বর দিয়ে হারানো জিডি করা হয়। এরপর স্ত্রী তালাক হয়েছে বলে নতুন তথ্য সংযোজন করা হয়। এজন্য নোটারি পাবলিক করা কাবিননামাও জমা দেয় জালিয়াত চক্রের সদস্যরা।

এরপর জরুরি ফি জমা দিয়ে নতুন বই ইস্যুর আবেদন করা হয়। অভিনব এ জালিয়াতির সঙ্গে যুক্ত হয় পাসপোর্ট অধিদফতরের কয়েকজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তাও। চক্রের সঙ্গে হাত মিলিয়ে দ্রুততম সময়ে নতুন একটি পাসপোর্ট বই (রি-ইস্যু) প্রিন্ট করে তারা।

এরপর শেষ ধাপে তাদের যোগসাজশে ডেলিভারি কাউন্টার থেকে নতুন পাসপোর্ট বইটি তুলে নির্বিঘ্নে চলে যায় জালিয়াত চক্রের সদস্যরা।

এ ঘটনা জানাজানি হলে পাসপোর্ট অধিদফতরে লংকাকাণ্ড ঘটে। মহাপরিচালক এ সংক্রান্ত ফাইলটি জব্দের নির্দেশ দেন। ঘটনার সুরাহা করতে তিনি ওই ব্যবসায়ীকে বিশেষ ব্যবস্থায় দ্রুত আরেকটি পাসপোর্ট ইস্যু করে দেন।

এমনকি এ সংক্রান্ত অনিয়মের বিষয়টি উল্লেখ করে ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে একটি চিঠিও লেখেন তিনি। এরপর পাসপোর্ট মহাপরিচালক ভুক্তভোগী ব্যবসায়ীর কাছে আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করেন। ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে উত্তরা পাসপোর্ট অফিসের উপসহকারী পরিচালক জাহাঙ্গীর আলমকে ক্লোজড করা হয়।

ঘটনার আদ্যোপান্ত জানতে গঠন করা হয় তদন্ত কমিটি। ঢাকা বিভাগীয় পাসপোর্ট পরিচালক আবু আসাদের নেতৃতাধীন ওই কমিটি এখন এ ঘটনার তদন্ত করছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে আবু আসাদ বলেন, তদন্ত শেষে এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে দাখিল করা হবে। এর বাইরে তিনি আর কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

এদিকে যেনতেন অজুহাতে পাসপোর্ট অধিদফতরের এক শ্রেণীর কর্মকর্তা-কর্মচারী সেবাপ্রার্থীদের হয়রানি করে থাকেন। যার বেশিরভাগই থেকে যায় অধিদফতরের শীর্ষ কর্মকর্তাদের জানার বাইরে। মাঝেমধ্যে যা জানতে পারেন তা কম বিস্ময়ের নয়।

সম্প্রতি এ রকম একজন ভুক্তভোগী অধিদফতরের মহাপরিচালকের কাছে এসে বলেন, তিনি তার মেয়ের পাসপোর্ট নবায়ন করতে এসেছেন। অথচ তাকে বলা হচ্ছে, মেয়েকে হাজির করতে হবে, যা পাসপোর্ট আইনের কোথাও নেই।

অভিযুক্ত কর্মকর্তার নাম রাশেদুল ইসলাম। তিনি পাসপোর্ট অধিদতফরের সহকারী পরিচালক। ভুক্তভোগী ব্যক্তি গত সপ্তাহে অধিদফতরের ডিজির কাছে এসে পুরো ঘটনা তুলে ধরেন।

তিনি জানান, সহকারী পরিচালক রাশেদুল ইসলাম তাকে বলেন, ‘আপনার মেয়ে হলে অফিসে নিয়ে আসেন। আমরা তাকে দেখব। তারপর পাসপোর্ট পাবেন।’

সরকারি কর্মকর্তার এমন কথায় মানসিকভাবে চরম আঘাত পান তিনি। ঘটনা শুনে মহাপরিচালক তাৎক্ষণিকভাবে সহকারী পরিচালক রাশেদুল ইসলামকে তলব করেন। এই হয়রানির সঙ্গে জড়িত মৃদুল নামের ডাটা সেন্টারের আরেক অফিস সহকারীকেও ডেকে আনা হয়।

জড়িত দু’জনকেই কড়া ভাষায় ভর্ৎসনা করেন অধিদফতরের মহাপরিচালক। ভবিষ্যতে এ ধরনের আচরণ থেকে বিরত থাকার জন্য তাদের সতর্ক করা হয়।

এই সংক্রান্ত আরো সংবাদ

পৃথিবীর সব প্রাণী ধ্বংস হবে কবে, জানালেন বিজ্ঞানীরা

পৃথিবীতে কোনো প্রাণী বা প্রজাতিই স্থায়ী নয়। একদিন না একদিনবিস্তারিত পড়ুন

এটিএম থেকে টাকার পরিবর্তে কী বের হচ্ছে?

এটিএম বুথের মেশিন থেকে টাকাই তো বের হওয়ার কথা। কিন্তুবিস্তারিত পড়ুন

৩৩ বছরে ছুটি নিয়েছেন মাত্র একদিন

১৯৪০-এ ভিক্টোরিয়া হাসপাতালে নার্সিংয়ে হাতেখড়ি। দু’টি বিশ্বযুদ্ধ, ২৪ বার প্রধানমন্ত্রীবিস্তারিত পড়ুন

  • লজ্জায় লাল হয়ে যায় পাখিও
  • দুই হাতের হৃদয়রেখা মিলে গেলে কি হয় জানেন?
  • ৩২১ থেকে ওজন কমিয়ে ৮৫!
  • রং নম্বরে প্রেম, বাধা হয়ে দাঁড়ায়নি ঝলসে যাওয়া মুখ
  • পানিতে ভেসে উঠলো অলৌকিক হাত!
  • ১৫ বছরে একবার ফোটে ‘মৃত্যুর ফুল’
  • চা বিক্রেতা এখন ৩৯৯ কোটি টাকার মালিক
  • একটি মাছের বিষে মারা যেতে পারে ৩০ জন
  • মোবাইল কিনতে ছয় সপ্তাহের শিশুকে বিক্রি
  • পরকীয়ায় জড়াচ্ছে নারীরা প্রধান যে তিনটি কারণ নেপথ্যে
  • ২৪০০ কেজি খিচুড়ি রান্না হয় যেখানে দৈনিক !
  • পরীক্ষায় ফেল করলেই বিবাহ বিচ্ছেদ