বুধবার, এপ্রিল ১৭, ২০২৪

আমাদের কণ্ঠস্বর

প্রধান ম্যেনু

তারুণ্যের সংবাদ মাধ্যম

প্রথম আলোর সংবাদের পরিপ্রেক্ষিতে মতিয়া চৌধুরী

কলের লাঙল কেনায় ভর্তুকির অর্থ বরাদ্দ নিয়ে প্রতিবেদনকে কেন্দ্র করে প্রথম আলোর বিরুদ্ধে অসৎ সাংবাদিকতার অভিযোগ করেছেন মতিয়া চৌধুরী। ঝিনাইদহের এই বিষয়টিকে কেন্দ্র করে প্রথম আলোর প্রতিবেদকের রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতার বিষয়টিও রোববার সংসদে ৩০০ বিধিতে দেওয়া এক বিবৃতিতে তুলে ধরেন তিনি।

কৃষিমন্ত্রী মতিয়া প্রথম আলোকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘যতই বানোয়াট নিউজ ছাপান না কেন, এতে যে আমি খুব একটা উত্তেজিত হব, এমন না। তারা তাদের
ইচ্ছামতো নিউজ করে এবং সেইভাবে পাঠকদের বিভ্রান্ত করে। আমি শুধু এটুকু বলবো যে মন্ত্রী বা এমপি হলে পার্লামেন্টে কথা বলতে পারি, তাও সেশন থাকলে। সাধারণ মানুষ কী করবে। সাধারণ মানুষের প্রতিকারের পথটা কী? এর নাম সৎ সাংবাদিকতা না। আই রিপিট, এর নাম সৎ সাংবাদিকতা না, এর নাম সৎ সাংবাদিকতা না।’

গত ২৭ মে প্রথম আলো পত্রিকায় ‘কলের লাঙলের ভর্তুকির বড় ভাগ সরকারি দলের নেতা-কর্মীদের পকেটে’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে ১৬ জুন সংসদে বিবৃতি দেন মতিয়া চৌধুরী। ওই বিবৃতির পরিপ্রেক্ষিত সংবাদ প্রকাশের পর আবারও বিবৃতি দেন মতিয়া।

সর্বশেষ গত ২ জুলাই পত্রিকাটি ‘প্রথম আলোর খবর অসত্য নয়, এখনো পাঁচজন লাঙল কেনেননি’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করে। এর পরিপ্রেক্ষিতে রোববার আবার সংসদে এনিয়ে কথা বলেন কৃষিমন্ত্রী।
ষাটের দশকে মতিয়া যখন বামপন্থি ছাত্র সংগঠন ছাত্র ইউনিয়নের নেতা ছিলেন, প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমানও তখন ছাত্র সংগঠনটির মধ্যম সারির নেতা ছিলেন। মতিউর রহমান পরে কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য ও দলটির মুখপত্র একতার সম্পাদক ছিলেন।

প্রথম আলোর সংবাদের পরিপ্রেক্ষিতে গত ৩ জুলাই মন্ত্রণালয় আবার তদন্ত করেছে জানিয়ে তিনি বলেন, ওই তদন্তে প্রথম আলোর সংবাদ ‘অসত্য’ বলে প্রমাণিত হয়েছে।

ঝিনাইদহে প্রথম আলোর নিজস্ব প্রতিবেদকের প্রসঙ্গে মতিয়া বলেন, “জনাব আজাদ রহমান ৯১-৯৬ সালে ঝিনাইদহ কালীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের সম্পাদক ছিলেন। ১৯৯৮-২০০০ মেয়াদে যুবদলের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। এছাড়াও তিনি প্রাক্তন মন্ত্রী তরিকুল ইসলামের লোকসমাজ পত্রিকার সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন।”

ভর্তুকি দেওয়া প্রসঙ্গে মতিয়া বলেন, “একজন কৃষক ৭৫ ভাগ টাকা জমা দিলে পরে কিনতে পারে। তাও কাগজপত্র নিশ্চিত হওয়ার পর সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানকে ভর্তুকির টাকা দেওয়া হয়। কোনো ব্যক্তিকে এই টাকা দেওয়া হয় না। মূলত এই বিষয়টি হয়ত প্রথম আলো কর্তৃপক্ষ বোঝে না, অথবা বুঝেও না বোঝার চেষ্টা করছে… অথবা এর পেছনে কোনো উদ্দেশ্য নিহিত আছে।

এই সংক্রান্ত আরো সংবাদ

আগামীতে সবার অন্ন, বস্ত্র, শিক্ষা ও বাসস্থানের ব্যবস্থা করতে পারবো: প্রধানমন্ত্রী

গণভবনে শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন,আগামীতে সবার অন্ন, বস্ত্র,বিস্তারিত পড়ুন

শাওয়ালের চাঁদ দেখা যায়নি, ঈদ বৃহস্পতিবার

বাংলাদেশের আকাশে শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। পবিত্র ঈদুল ফিতরবিস্তারিত পড়ুন

জাতীয় ঈদগাহে পাঁচ স্তরের নিরাপত্তার কথা জানালো ডিএমপি কমিশনার

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার হাবিবুর রহমান বলেছেন, জাতীয় ঈদগাহসহবিস্তারিত পড়ুন

  • শ্রদ্ধার ফুলে ভরে উঠেছে স্মৃতিসৌধের বেদি
  • চার দিনেরে সফরে ঢাকায় ভুটানের রাজা
  • মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস আজ
  • যেভাবে টানা ৬ দিনের ছুটি মিলতে পারে ঈদুল ফিতরে
  • বায়ু দূষণ: শীর্ষস্থানে বাংলাদেশ, দ্বিতীয় স্থানে পাকিস্তান
  • শ্রমিক অধিকার নিয়ে নালিশের নিষ্পত্তি নভেম্বরে: আইনমন্ত্রী 
  • সংগীত শিল্পী খালিদ আর নেই
  • ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি, তাড়াহুড়োয় ভুল হয়ে গেছে: বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী
  • মোহাম্মদপুর কেন্দ্রীয় কবরস্থানে সমাহিত হবেন সাদি মহম্মদ
  • কান্না জড়িত কন্ঠে কুড়িগ্রামে পুলিশের ট্রেইনি কনস্টেবল
  • দ্বিতীয় পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র কোথায় হবে জানালেন প্রধানমন্ত্রী
  • অবশেষে ডিএনএ পরীক্ষায় জানা গেল অভিশ্রুতি নাকি বৃষ্টি